স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: টুইটারে একটি ছবি পোস্ট করে ফের তৃণমূলের বিরুদ্ধে `নোংরা’ রাজনীতি করার অভিযোগ তুললেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী তথা আসানসোলের সাংসদ বাবুল সুপ্রিয়।

শনিবার বিকেলে যে ছবিটি টুইট করেন আসানসোলের বিজেপি সাংসদ। তাতে দেখা যায়, এক ব্যক্তি আপাতমস্তক সাদা পিপিই-তে ঢেকে আছেন। হাতে গ্লাভস। আর সাদা পিপিইয়ের উপরে একটি কাপড়ের অংশ আটকানো। তাতে নীল হরফে লেখা রয়েছে- ‘প্রেজেন্টেড বাই সুজিত বসু’। তবে ছবিটির সত্যতা যাচাই করেনি কলকাতা 24×7।

ছবিটিকে হাতিয়ার করে করোনার পরিস্থিতিতে তৃণমূলের বিরুদ্ধ রাজনীতি করার অভিযোগ তোলেন বাবুল। তিনি লিখেছেন, “অত্যন্ত লজ্জাজনক টিএমছি। একজন তৃণমূল কংগ্রেস নেতাই এটা করতে পারেন। এটা সুজিত বসুর অত্যন্ত নিম্নমানের কাজ। এরকম কেউ ভাবতেও পারে দেখে হতভম্ব আমি।”

পাল্টা টুইট করেছেন সুজিত বসুও। তিনি লিখেছেন, “আমরা তাও তো দিচ্ছি। কিন্তু বাংলার মানুষ দেখছে আপনি প্রতিদিন সোশ্যাল মিডিয়ায় মিথ্যে প্রচার ছাড়া আর কিছুই করছেন না।”

এদিকে, বাবুল সুপ্রিয়কে নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় নানা মজার মিম ছড়িয়ে পড়েছে।ভাইরাল হওয়া এক ভিডিওয় দেখা যাচ্ছে, ১১ কেজির লাড্ডু মানত করে এক ভক্ত বজরংবলির কাছে সাংসদকে হাজির করার প্রার্থনা জানাচ্ছেন। কোথাও দেখা যাচ্ছে সাংসদ মিসিং-এর পোস্টার।

শনিবার আসানসোলের মেয়র জিতেন্দ্র তিওয়ারি তাঁর টুইটারে সাংসদের কাছে প্রশ্ন করেছেন, পরীক্ষাকেন্দ্রের কাজ কতদূর হয়েছে, তা আসানসোলবাসীকে জানান সাংসদ। মেয়র পারিষদ অভিজিৎ ঘটক ফেসবুক পোস্টে প্রশ্ন তুললেন, দিল্লির প্রতিনিধি দল লকডাউন ভেঙে যদি রাজ্যে আসতে পারেন, তবে আসানসোলে পা রেখে বাবুল সুপ্রিয় কেন এলাকাবাসীর পাশে দাঁড়াচ্ছেন না? বিধায়ক, মেয়র, মন্ত্রীকে যখন এলাকায় ত্রাণ বিলি করতে দেখা যাচ্ছে, তখন সাংসদের দেখা নেই কেন?

ভাইরাসের পরীক্ষাগার সম্পর্কে বাবুল সুপ্রিয় টুইটে লিখেছেন, “আসানসোল বা দুর্গাপুরের মধ্যে ল্যাব খোলার জন্য উপযুক্ত জায়গা খোঁজার চেষ্টা চলছে। তবে এই কাজটি সময়সাপেক্ষ।”

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ