আসানসোল:  খোদ নিজের লোকসভা কেন্দ্রে ঢুকতে গিয়েই পুলিশের বাঁধার মুখে পড়তে হল আসানসোলের সাংসদ বাবুল সুপ্রিয়। ঘটনাকে কেন্দ্র করে ব্যাপক উত্তেজনা ছড়াল জামুরিয়া এলাকায়। যদিও পুলিশি ঘেরাটোপ এড়িয়েই এলাকায় পৌঁছন বাবুল। ঘটনার খবর পেয়েই ঘটনাস্থলে পৌঁছন জেলা পুলিশের উচ্চপদস্থ আধিকারিকরা।
ঘটনার সূত্রপাত মঙ্গলবার। জামুরিয়া এলাকায় এক নাবালিকা ধর্ষণ করে খুনের অভিযোগকে কেন্দ্র করে ব্যাপক উত্তেজনা ছড়ায়। পুলিশের সঙ্গে সাধারণ মানুষের খন্ডযুদ্ধে কার্যত রণক্ষেত্রের চেহারা নেয় এলাকা। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ব্যাপক লাঠিচার্জ করে পুলিশ। ঘটনার পরেই ১৪৪ ধারা জারি করা হয়। আজ বুধবার ঘটনার খবর পেয়েই ঘটনাস্থলে পৌঁছন বাবুল। কিন্তু অভিযোগ ঘটনাস্থলে পৌঁছনোর অনেক আগেই আটকে দেওয়া হয় বাবুলকে। পুলিশের দাবি, ঘটনাস্থলে জারি রয়েছে ১৪৪ ধারা। এছাড়া ঘটনাস্থলে বাবুলকে গেলে পরিস্থিতি আবারও নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যেতে পারে বলে দাবি পুলিশের। কিন্তু বিষয়টি না মেনেই এগিয়ে চলে বাবুল। ঘটনাকে কেন্দ্র করে একসময়ে পুলিশের সঙ্গে ধ্বস্তাধস্তিতে পর্যন্ত জড়িয়ে পড়েন বাবুল। কিন্তু না থেকে পুলিশের ব্যরিকেড ভেঙে ঘটনাস্থলে পৌঁছন বাবুল।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।