স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: কোটি কোটি টাকার খয়রাতি করেন অথচ গাছ কাটার ইলেকট্রিক করাত নেই! রাজ্যের মন্ত্রী তথা প্রাক্তন মেয়র সুব্রত মুখোপাধ্যায়ের একটি বক্তব্যকে হাতিয়ার করে এবার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে নিশানা কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়।

মুখ্যমন্ত্রীর উদ্দেশ্যে টুইটারে বাবুল লিখেছেন, “মাননীয়া কোটি কোটি টাকার খয়রাতি করেন সারা বছর অথচ কলকাতা কর্পোরেশনের কাছে গাছ কাটার ইলেকট্রিক করাত নেই।

কলকাতার প্রাক্তন মেয়র বাংলার মন্ত্রী সুব্রত মুখার্জি সেটা স্বীকার করছেন, বলছেন “আমাদের কাছে যন্ত্রপাতি নেই-কুড়ুল দিয়ে গাছ কাটা হয়”! কি বলবেন এই সরকারকে।” একটি টিভি চ্যানেলে সাক্ষাৎকার দিতে গিয়ে রাজ্যের মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায় বলেছেন, “আমি বিদেশে দেখেছি মোটা মোটা গাছের গুড়ি ব্লেডের মতো যন্ত্র দিয়ে কেটে দিচ্ছে। এখানে সেসব নেই।”

তিনি এও বলেছেন, “আমার বাড়ির সামনে তো দেখলাম কুড়ুল দিয়ে গাছ কাটা হচ্ছে!” প্রাক্তন মেয়রের ওই বক্তব্যকে হাতিয়ার করেই মুখ্যমন্ত্রীকে আক্রমণ করেছেন আসানসোলের সাংসদ বলেছেন। আমফানের তান্ডবের পর এক সপ্তাহ কাটতে চলল । কিন্তু এখনও শহরের বিভিন্ন এলাকায় গাছ পড়ে রাস্তা অবরুদ্ধ হয়ে রয়েছে এখনও।

সেগুলি সরাতে কাজ করছে পুরসভা ও সেনার সঙ্গে কাজ করছে জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনী, সিভিল ডিফেন্স, দমকল এবং কলকাতা পুলিশের বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনী। ওড়িশা থেকে শহরে এসেছেন দমকলের কর্মীরাও। তাঁরাও এই বিপর্যয়ে কাজে হাত মিলিয়েছেন।

ঘূর্ণিঝড়ের পরে বিজেপি এখন বলছে, সেনার সাহায্য ছাড়া কলকাতার পরিস্থিতি আরও শোচনীয় থাকত। রাজ্যে ‘অযোগ্য’ সরকারকে বদলে দিয়ে ২০২১ সালে বিকল্প সরকার প্রতিষ্ঠার ডাক দিচ্ছে তারা। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মুখ্যমন্ত্রিত্বের দ্বিতীয় ইনিংসের চার বছর পূর্তি উপলক্ষে কাল, বুধবার থেকে সরকারের বিরুদ্ধে চার্জশিট নিয়েও নেমে পড়তে চলেছে বঙ্গ বিজেপি।

প্রশ্ন অনেক: দ্বিতীয় পর্ব