দুবাই: আইপিএলের মাঝেই বিরাট ফ্যানেদের জন্য খারাপ খবর৷ সিংহাসনচ্যুত হলেন বিরাট কোহলি৷ আইসিসি ওয়ান ডে ব়্যাংকিংয়ে বিরাটকে টপকে এক নম্বরে উঠে এলেন পাকিস্তান ক্যাপ্টেন বাবর আজম৷ দীর্ঘদিন এক নম্বরে থাকার পর শীর্ষস্থান হারালেন ভারত অধিনায়ক৷

বছর ছাব্বিশের বাবর হলেন চতুর্থ পাকিস্তানি ব্যাটসম্যান হিসেবে আইসিসি ওয়ান ডে ব়্যাংকিংয়ে এক নম্বরে উঠলেন৷ চলতি মাসে দারুণ ফর্মে রয়েছেন পাক অধিনায়ক৷ দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে প্রথম ওয়ান ডে ম্যাচে সেঞ্চুরি করে দলকে জেতান বাবর৷ কেরিয়ারে ১৩ তম ওয়ান ডে সেঞ্চুরি করে শেষ বল থ্রিলার জিতেছিল পাকিস্তান৷

ওয়ান ডে কেরিয়ারের ১৩তম সেঞ্চুরির পথে প্রাক্তন প্রোটিয়া অধিনায়ক আমলার রেকর্ড ভাঙেন পাক অধিনায়ক৷ সেই সঙ্গে দ্রুততম ব্যাটসম্যান হিসেবে ওয়ান ডে ক্রিকেটে ১৩টি সেঞ্চুরি করার নজির গড়েছিলেন বাবর৷ মাত্র ৭৬টি ইনিংসে ১৩তম ওয়ান ডে সেঞ্চুরি করেন তিনি। আর আমলার ১৩টি সেঞ্চুরি এসেছিল ৮৩টি ওয়ান ডে ইনিংসে। শুধু তাই নয়, এই মুহূর্তে বিশ্বের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান কোহলির থেকে ১০টি কম ইনিংস খেলে ১৩তম ওয়ান ডে সেঞ্চুরি করেন বাবর৷ কোহলি এবং প্রোটিয়া ব্যাটসম্যান কুইন্টন ডি’কক ১৩টি ওয়ান ডে সেঞ্চুরি করতে নিয়েছেন ৮৬টি ইনিংস।

গত বছর পাক টেস্ট দলের ক্যাপ্টেন হওয়ার পর বাবর জানিয়েছিলেন, বিশ্বের সেরা ব্যাটস্যামদের সঙ্গে তুলনা হলে খুশি হবেন তিনি৷ এদিন বিরাটকে টপকে তা প্রমাণ করলেন বাবর৷ প্রথমবার ওয়ান ডে ব়্যাংকিংয়ে শীর্ষস্থানে উঠেলেন৷ ৮৬৫ রেটিং পয়েন্ট নিয়ে এক নম্বরে রয়েছেন বাবর৷ আর সিংহাসনচ্যুত হলেও ৮৫৭ রেটিং পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছেন কোহলি৷ তিন নম্বরে রয়েছেন রোহিত শর্মা৷ সীমিত ওভারের ফর্ম্যাটে বিরাটের ডেপুটি রোহিতের রেটিং পয়েন্ট ৮২৫৷ চার ও পাঁচ নম্বরে রয়েছেন যথাক্রমণে রস টেলর (৮০১) এবং অ্যারন ফিঞ্চ (৭৯১)৷ প্রথম দশের মধ্যে রয়েছেন আরও এক পাক ব্যাটসম্যান৷ ৭৭৮ রেটিং পয়েন্ট নিয়ে সাত নম্বরে রয়েছেন ফখর জামান৷ দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজে প্রথম দু’টি ওয়ান ডে সেঞ্চুরি করেছিলেন তিনি৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.