লখনউ: পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী চান নরেন্দ্র মোদী ফের ক্ষমতায় ফিরুন৷ এই তথ্য সামনে আসার পরেই একে হাতিয়ার করেছিল বিজেপি বিরোধীরা৷ তাঁদের বক্তব্য ছিল, মোদী ক্ষমতায় আসলে তাহলে পাকিস্তানেরই সুবিধা৷ সেই সুর ধরেই এবার বিজেপি সরকারকে বিঁধলেন সমাজবাদী পার্টির নেতা আজম খান৷

তাঁর বক্তব্য যদি ফের প্রধানমন্ত্রী হন নরেন্দ্র মোদী, তাহলে দেশের সর্বনাশ কেউ আটকাতে পারবে না৷ কারণ মোদী পুরোপুরি পাকিস্তানের সুরে কথা বলেন৷ তিনি পাকিস্তানের এজেন্ট বলে অভিযোগ করেন আজম খান৷ উল্লেখ্য দিনকয়েক আগেই ইমরান খান কাশ্মীর সমস্যা সমাধানে বিজেপির উপরই আস্থা প্রকাশ করেছিলেন৷

পাক প্রধানমন্ত্রী জানিয়ে ছিলেন, বিজেপি দ্বিতীয়বার জিতলে কাশ্মীর জট কাটানো সম্ভব হতে পারে৷ তাঁর দাবি, কংগ্রেস ক্ষমতায় এলে কাশ্মীরের সমস্যা মেটানো একটু অসুবিধাজনক হবে৷ সেই কথাকেই সামনে এনে মোদীকে কটাক্ষ করে আজম খান বলেন “আপনি আগে নওয়াজ শরিফের বন্ধু ছিলেন৷ এখন ইমরান খান আপনাকে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে চাইছেন৷ তাহলে ভেবে দেখুন আপনারা, পাকিস্তানের এজেন্ট কে?”

আজম খান প্রশ্ন তুলেছেন, কেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী চাইছেন যে মোদী ফের ক্ষমতায় ফিরুন? কারণ পাকিস্তান ও বিজেপির নিজস্ব বোঝাপড়া রয়েছে, নিজেদের মধ্যে চুক্তি রয়েছে৷ মোদী এই পাকিস্তানপ্রীতি এখন আর গোপন নেই, প্রকাশ্যে চলে এসেছে৷

তবে এখানেই শেষ নয়৷ এর আগে, সংবাদসংস্থা এএনআইকে আজম খান বলেছিলেন, একটা সময় আরএসএস বলত তারা মুসলিমদের সেকেন্ড ক্লাস সিটিজেন বানিয়ে ছাড়ব৷ কিন্তু এখন বলতেই হচ্ছে দেশে মুসলিমদের অবস্থা ভাড়াটিয়ার মতো৷

আরও পড়ুন : সৎ চৌকিদার নাকি দুর্নীতিবাজ নামদার, পছন্দ আপনাদের: মোদী

রমজান মাসে ভোট হওয়া প্রসঙ্গে সপা নেতা জানান, ভোটের দিন ঘোষণার পর তা পরিবর্তন করা সম্ভব নয়৷ কিন্তু দিন ঘোষণার আগে নির্বাচন কমিশন নিশ্চয়ই বিষয়টি জানত৷ সমাজবাদী পার্টির এই বরিষ্ঠ নেতা এয়ারস্ট্রাইক নিয়ে রাজনীতি করায় নাম না নিয়ে বিজেপিকে একহাত নেন৷

সংবাদ সংস্থা এনআইএকে আজম খান বলেছেন,”প্রথমবার কেউ সার্জিক্যাল স্ট্রাইকের নামে ভোট চাইতে যাবে৷ তার মানে সেনাদের জীবনের উপর ভোট চাওয়া হচ্ছে৷ সীমান্তের সওদা করা হয়েছে, রক্তের সওদা করা হয়েছে, উর্দির সওদা করে দেওয়া হয়েছে৷”