নয়াদিল্লি: নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন নিয়ে ফের কেন্দ্রকে তুলোধনা করলেন কংগ্রেস নেতা গুলাম নবি আজাদ৷ দেশের উত্তর পূর্বাঞ্চলে কাশ্মীরের পরিস্থিতিরই পুনরাবৃত্তি হচ্ছে বলেও দাবি বর্ষীয়ান এই কংগ্রেস সাংসদের৷ কেন্দ্রকে কটাক্ষ করে গুলাম নবি আজাদ বলেন, ‘গোটা উত্তর-পূর্ব ভারত জ্বলছে৷ উত্তর-পূর্বাঞ্চলের পরিস্থিতি কাশ্মীরের মতো৷ পরিস্থিতি সামলাতে ব্যর্থ কেন্দ্রীয় সরকার৷’

গুলাম নবি আজাদের আরও অভিযোগ, ১৪৪ ধারা জারি করে, কার্ফু জারি করে, লাঠিচার্জ করে মানুষের কণ্ঠরোধ করা যাবে না৷ কেন্দ্রের বিরুদ্ধে মানুষকে কথা বলতে দেওয়া হচ্ছে না।প্রতিবাদ জানালে মানুষকে খুন করা হচ্ছে। জম্মু ও কাশ্মীরের সঙ্গে অসমের তুলনা করে আজাদ আরও বলেন ‘আশ্বাস কি সত্যিই কাজে করে? এটা তো কাশ্মীরের মানুষের সঙ্গে যা ঘটেছে তাইই আবার দেখা যাচ্ছে অসমে। উত্তরপূর্বের রাজ্যগুলিতে যা ঘটছে , তা যেন কাশ্মীরের ঘটনারই পুরাবৃত্তি। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী উত্তর পূর্বের রাজ্যগুলির মানুষকে আশ্বস্ত করলেও, সেই আশ্বাস কোনও কাজে লাগবেনা।’

কেন্দ্রের প্রধান বিরোধী দল কংগ্রেসের অভিযোগ, নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল ভারতের সংবিধানের পরিপন্থী। এটি ভারতীয় সংবিধানের বিরোধী। কংগ্রেসের দাবি, সরকার জোর করে সাধরাণ মানুষের কণ্ঠরোধ করতে চাইছে।

ইতিমধ্যেই নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদে সুপ্রিম কোর্টে মামলা হয়েছে৷ ইন্ডিয়ান ইউনিয়ন মুসলিম লিগের তরফে মামলা হয়েছে৷ নাগরিক্তব আইনকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে শী৪ষ আদালতে আবেদন করেছেন তৃণমূলের সাংসদ মহুয়া মৈত্রও৷ জরুরি ভিত্তিতে আবেদনের শুনানি চেয়েছিলেন মহুয়ার আইনজীবী৷ তবে সুপ্রিম কোর্ট মহুয়া মৈত্রের আইনজীবীর জরুরি শুনানির সেই আবেদন খারিজ করেছে৷ নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদ জানিয়েছে কেরলের বাম সরকারও৷ এই নয়া আইন কেরলে কোনওভাবেই কার্যকর করা হবে না বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন কেরলের বাম সরকারের মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়ন৷

চলতি সপ্তাহের সোমবার লোকসভায় পাশ হয় নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল৷ বিলের প্রতিবাদে লোকসভায় সুর চড়ান কংগ্রেস, তৃণমূল-সহ একাধিক বিরোধী দলের সাংসদরা৷ এরপর বুধবার রাজ্যসভাতেও বিল পেশের সময় তুমুল হট্টগোল বাধে৷ বিরোধী সাংসদদের বিরোধিতাকে উপেক্ষা করেই সংসদের দুই কক্ষে পাশ হয়ে যায় নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল৷ রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দের সইয়ের পর সেই বিল এখন আইনে পরিণত হয়েছে৷