নয়াদিল্লি: বহুপ্রতীক্ষিত রাম মন্দির তৈরি হচ্ছে, বুধবার প্রথম বৈঠকে প্রকাশ্যে এল প্রধানের নাম। বাবরি মসজিদ মামলায় অভিযুক্ত এবং নির্মোহী আখড়ার মহন্ত নৃত্যগোপাল দাস। বিশ্ব হিন্দু পরিষদের সহ-সভাপতি চম্পত রাইকে রাম মন্দির ট্রাস্টের সাধারণ সম্পাদক পদে বেছে নেওয়া হয়েছে। রাম জন্মভূমি ট্রাস্টের অধীনস্থ মন্দির নির্মাণ কমিটির প্রধান করা হল নৃপেন্দ্র মিশ্রকে। যিনি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির প্রাক্তন প্রিন্সিপাল সেক্রেটারি।

বুধবার নয়াদিল্লিতে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্র এবং রাজ্য সরকারের প্রতিনিধিরাও। এই বৈঠকে সদস্যরা ট্রাস্টের পদাধিকারীদের বেছে নেন। মন্দির নির্মাণ কমিটির প্রধান নির্বাচিত হয়েছেন আইএএস অফিসার নৃপেন্দ্র মিশ্র। রাম মন্দির নির্মাণে অনুদান গ্রহণের জন্য এসবিআই অযোধ্যা শাখায় অ্যাকাউন্ট খোলার সিদ্ধান্তও নেওয়া হয়েছে এই বৈঠকে।

২০১৪ সালে নরেন্দ্র মোদী যখন প্রথম বার জিতে আসেন তখন থেকে তাঁর প্রধান সচিব ছিলেন উত্তরপ্রদেশ ক্যাডারের এই আইএএস অফিসার। কিন্তু গত বছর অগস্টে হঠাৎ নৃপেন্দ্র মিশ্র সেই পদ থেকে ইস্তফা দেন।

শোনা যায়, খোদ অমিত শাহের সুপারিশে তাঁকে ওই পদে বসিয়েছিলেন মোদী। এমনকী নৃপেন্দ্রকে ওই পদে বসাতে ২০১৪ সালে নিয়মও বদল করছিল কেন্দ্রীয় সরকার।

সুপ্রিম কোর্ট অযোধ্যা মামলার রায়ের পরিপ্রেক্ষিতে গত ৫ ফেব্রুয়ারি সংসদে ১৫ সদস্যের রাম মন্দির ট্রাস্ট তৈরির কথা ঘোষণা করন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। লোকসভায় তিনি জানিয়েছিলেন, ‘অযোধ্যায় রাম মন্দির নির্মাণে আমরা একটা প্রকল্প তৈরি করেছি। সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ মেনে একটি ট্রাস্ট গঠন করা হয়েছে। এর নাম দেওয়া হয়েছে শ্রী রাম জন্মভূমি তীর্থক্ষেত্র। এটি হবে স্বশাসিত।’

আগামী এপ্রিল মাসে রামমন্দিরের শিলান্যাসের সম্ভাবনা৷ রামনবমী (২ এপ্রিল) বা অক্ষয় তৃতীয়ায় (২৬ এপ্রিল) এই মন্দিরের শিলান্যাস হতে পারে। বিজেপি সূত্রে খবর, রামমন্দিরের শিলান্যাসে প্রধান অতিথি হবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী৷ তিনি এর শিল্যান্যাস করবেন। অযোধ্যায় রামের গগনচুম্বী মন্দির নির্মাণ করা হবে বলে এর আগে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ ঘোষণা করেছেন।