নয়াদিল্লি : কিছুক্ষণের মধ্যেই বহু প্রতিক্ষিত রাম মন্দিরের ভূমি পুজো। উপস্থিত থাকবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী সহ একাধিক বিজেপি শীর্ষ স্থানীয় নেতা। নির্দিষ্ট সময়ে পাঁচটি রুপোর ইঁট বসিয়ে শুরু হবে ভূমি পুজো। এই ইঁট পাতবেন প্রধানমন্ত্রী স্বয়ং।

২০১৯ সালের ৫ই অগাষ্ট জম্মু কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা প্রত্যাহার। ২০২০ সালের ৫ই অগাষ্ট রাম মন্দিরের ভূমি পুজোর সূচনা। একের পর এক স্বপ্ন সফল করছে বিজেপি-আরএসএস।

রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা জানাচ্ছেন যতই ধুমধাম করে রাম মন্দিরের অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হোক না কেন, কোনওভাবেই বিতর্ক পিছু ছাড়ছে না। এরই মধ্যে পাঁচটি প্রশ্ন উঠে এসেছে।

মোদীর কি অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকা উচিত? প্রধানমন্ত্রী হিসেবে কোনও বিশেষ ধর্মের পক্ষ নিয়ে তাদের অনুষ্ঠানে কি উপস্থিত থাকা উচিত নরেন্দ্র মোদীর, প্রশ্ন তুলছেন অনেকেই। রাম মন্দিরের ভূমি পুজোর উদ্বোধনে দেশের প্রধানমন্ত্রীর থাকা নিয়ে বিতর্ক তৈরি হয়েছে। হায়দরাবাদের সাংসদ আসাদুদ্দিন ওয়াসি প্রশ্ন তোলেন একজন প্রধানমন্ত্রী কেন কোনও ধর্মীয় অনুষ্ঠানে থাকবেন। তিনি ধর্মনিরপেক্ষ দেশের প্রধানমন্ত্রী, তাঁর কোনও বিশেষ ধর্মের পক্ষ নেওয়া শোভা পায় না।

করোনা ভাইরাস আবহে জমায়েত কেন? আরেকটি বিতর্ক উঠেছে রাম মন্দিরের ভূমি পুজো ঘিরে। বিরোধীদের প্রশ্ন এই করোনা আবহে যেখানে কেন্দ্রের পক্ষ থেকে সামাজিক দূরত্ব মেনে চলার কথা বলা হচ্ছে, সেখানে এত ঘটা করে পুজো করার কি অর্থ। সাধারণ মানুষ তাহলে আইন বা নিয়ম ভাঙার ছুতো পেয়ে যাবে। প্রতিদিন যেখানে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা রেকর্ড ছুঁয়ে ফেলছে, সেখানে রাম মন্দিরের জন্য এত ঝুঁকি নেওয়ার কি প্রয়োজন ছিল।

ধর্মস্থানে রাজনৈতিক যোগাযোগের বাড়বাড়ন্ত-– রাম মন্দির নিয়ে বিজেপি ও আরএসএসের উৎসাহকে কটাক্ষ করছেন বিরোধীরা। তাঁদের বক্তব্য ভগবান রাম কারোর বা কোনও বিশেষ দলের একার নন। তিনি সর্বজনীন। কিন্তু রাম মন্দিরের পুজোয় কোনও বিরোধী দলের নেতার জায়গা হয়নি। এই বৈষম্য কেন।

পুজোর সময়- রাম মন্দিরের ভূমি পুজোর সময় নিয়ে বিতর্ক তৈরি হয়। যে সময়ে বারাণসীর বিখ্যাত জ্যোতিষী আচার্য গণেশ্বর রাজ রাজেশ্বর শাস্ত্রী দ্রাবিড় ঠিক করেন ১২.১৫.১৫ মিনিট থেকে ১২.১৫.৪৭ মিনিট পর্যন্ত সময় ভূমি পুজো শুরু করার। অর্থাৎ মাত্র ৪৭ সেকেন্ডে পাঁচটি রুপোর ইঁট স্থাপন করতে হবে। এই সময়কে চ্যালেঞ্জ জানিয়েছেন শঙ্করাচার্য স্বামী স্বরূপানন্দ সরস্বতী। তিনি বলেন এই মুহুর্ত, যা স্থির করা হয়েছে, তা শুভ নয়।

রাম মূর্তির ছবি- ভগবান রামের যে ছবি রাম মন্দিরের জন্য নির্দিষ্ট করা হয়েছে, তাঁর এক হাতে তীর ও অন্য হাতে ধনুক। এই নিয়েও বিতর্ক বেঁধেছে। প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী ও কংগ্রেস নেতা বিরাপ্পা মইলি এই মূর্তি নিয়ে আপত্তি তুলেছেন। এখানে ভগবান রামের বরাভয় দানকারী মূর্তি কেন বাছা হল না, তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন তিনি।

পপ্রশ্ন অনেক: নবম পর্ব

Tree-bute: আমফানের তাণ্ডবের পর কলকাতা শহরে শতাধিক গাছ বাঁচাল যারা