স্টাফ রিপোর্টার, মহিষাদল: প্লাস্টিক ব্যবহারের পর যত্রতত্র ফেলে দেওয়ায় দিনের পর দিন পরিবেশ দূষণের মাত্রা বেড়েই চলেছে। বর্তমান সময়ে সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত দৈনন্দিন জীবনে প্লাস্টিকের ব্যবহার ক্রমেই বেড়ে চলেছে। ফলে দিন যত অতিবাহিত হয়ে চলেছে দূষনের মাত্রাও বেড়ে চলেছে। এই ভাবে দূষনের মাত্রা বাড়তে থাকলে এমন একদিন আসবে পরিবেশ রক্ষা করা সংকটের মুখে পড়তে পারে।

পরিবেশকে দূষণ মুক্ত করার লক্ষ্যে হলদিয়া মহকুমার মহিষাদল ব্লক বিশেষ উদ্যোগ গ্রহন করল। বৃহস্পতিবার মহিষাদল পঞ্চায়েত সমিতির উদ্যোগে মহিষাদল কুমুদিনী ডাকুয়া মুক্ত মঞ্চে প্লাস্টিকের জিনিসের ব্যবহার কমানোর লক্ষ্যে আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। সেই আলোচনা সভায় উপস্থিত ছিলেন জেলাপরিষদের সভাধিপতি দেবব্রত দাস, হলদিয়া মহকুমা শাসক কুহুক ভূষণ, মহিষাদল ব্লকের বিডিও জয়ন্ত দে, জয়েন্ট বিডিও কৃষ্ণকান্ত মণ্ডল, মহিষাদল পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি শিউলী দাস, সহ সভাপতি তিলক চক্রবর্তী সহ অন্যান্যরা।

এদিন ব্লকে প্রাথমিক, হাইস্কুল থেকে শুরু করে শিশুশিক্ষা কেন্দ্রের শিক্ষক শিক্ষিকা সহ ব্লকের সমস্ত জনপ্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন। এদিন উপস্থিত ১০০০ মানুষের হাতে প্লাস্টিক ব্যাগ বর্জনের জন্য জুট ব্যাগ প্রদান করা হয়। এদিন মহিষাদল রাজ কলেজের অধ্যাপক ও গবেষক শুভময় দাস প্লাস্টিকের ব্যবহার মানব জীবনে কতটা ক্ষতিকর তা তথ্যচিত্রের মাধ্যমে সকলের সামনে তুলে ধরেন।

পূর্ব মেদিনীপুর জেলাপরিষদের সভাধিপতি দেবব্রত দাস জানান, ইতিমধ্যে প্লাস্টিক বর্জনের জন্য দিঘায় নানা সচেতনতা শিবির করে প্লাস্টিক ব্যবহারের মাত্রা অনেকটাই কমানোর ব্যবস্থা করা হয়েছে। মহিষাদল পঞ্চায়েত সমিতির এই উদ্যোগকে সাধুবাদ জানাই। জেলার প্রতিটি ব্লকে ও পৌর এলাকায় যাতে এই ধরনে প্লাস্টিক বর্জনের সচেতনতা শিবির করে সাধারন মানুষকে সচেতন করা যায় তার ব্যবস্থা করা হবে।

মহিষাদল পঞ্চায়েত সমিতির সহ সভাপতি তিলক চক্রবর্তী জানান, নির্মল বাংলা গড়ে তোলার জন্য দূষণ মুক্ত পরিবেশ গড়ে তোলার লক্ষ্যে এলাকার মানুষদের সচেতন করার জন্য এই ধরনের উদ্যোগ গ্রহন করা হয়েছে। আগামী ৬ মাস ধরে এলাকার স্কুলে স্কুলে বা প্রতিষ্ঠানে গিয়ে প্লাস্টিক বর্জনের সচেতনতার বার্তা তুলে ধরা হবে।