কলকাতা২৪x৭: বর্তমান সময়ে মানুষের বেঁচে থাকা একটা বড় চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছে। এই মহামারীর সময় প্রতিটা দিন মানুষ ভাইরাসের সঙ্গে যুদ্ধ করে চলেছে। তবু যেন মানুষের থেকে ভাইরাস বেশি শক্তিশালী। তাইতো প্রতিটা দিন কোভিড-১৯ সংক্রমনের সংকটজনক রোগীর সংখ্যা বেড়েই চলেছে। সংক্রমণ আটকাতে একাধিক রাজ্যে লকডাউন পরিষেবা চালু করেছে মানুষের স্বাস্থ্য সুরক্ষার কথা মাথায় রেখে। আবার অনেকেই নিজে থেকেই ঘরবন্দি হয়ে রেয়েছেন। এই মহামারীর সময় সুস্থ থাকার জন্য সব থেকে বড়ো অস্ত্র ইমিউনিটি।

শুধু করোনা ভাইরাস থেকে বাঁচা নয়, অন্য জীবাণুর আক্রমণ থেকে বাঁচতে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানোর দরকার আমাদের। আমাদের জীবনে নানা সমস্যা দেখা দেওয়ার ক্ষেত্রে শরীরের এই রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাগুলি কমতে শুরু করে। নানা ধরনের ক্ষতিকর জীবাণুকে আটকানোর জন্য কী করলে আমাদের এই রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি পাবে তা হয়তো অনেকেরই অজানা। রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করতে কী প্রয়োজন তা এই প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হল।

১. রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানোর জন্য আমাদের প্রচুর পরিমাণে জল খাওয়া দরকার। চিকিৎসকরা জানাচ্ছেন বিভিন্ন জীবাণু মূত্রের মাধ্যমে আমাদের শরীর থেকে নির্গত হয়, ফলে জল কম খেলে সেই জীবাণুগুলো আমাদের শরীর থেকে নির্গত হতে পারেনা। যার কারণে রোগ প্রতিরোধ শক্তি কমতে থাকে।

২. ঘুমের ক্ষেত্রে আমরা অনেকেই নিয়ম ভেঙে থাকি। কাজের চাপ হোক কিংবা সারারাত জেগে মুভি দেখার কারণে ঘুমের ঘাটতি থেকে যায়। তবে চিকিৎসকরা জানাচ্ছেন, ঠিক সময়ে ঘুম এবং পর্যাপ্ত মাত্রায় ঘুম না হলে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যেতে পারে। সঠিক মাত্রায় ঘুম না হলে শরীরে থাকা বিভিন্ন জীবাণু সঙ্গে লড়াই করা বা মোকাবিলা করা খুব কঠিন হয়ে পড়ে আমাদের।

৩. করোনা মহামারীর সময় একভাবে বাড়িতে থাকার ফলে কিংবা বিভিন্ন কর্মক্ষেত্রের নানা সমস্যার কারণে মানসিক ক্ষতি দেখা দিচ্ছে মানুষের মধ্যে। মানসিক চাপ থেকেও শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমতে পারে বলে জানাচ্ছেন চিকিৎসক। এর পাশাপাশি ক্যান্সারের মতো ভয়াবহ রোগ হতে পারে মানসিক ক্ষতিতে।

৪. ধূমপান স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকারক হিসেবে চিহ্নিত করা হয়। ধূমপান বন্ধ করার জন্য একাধিক বিজ্ঞাপন দেওয়া হয়েছে, তবু তাতে কোন কাজ হয়নি। করোনা কালে বারবার চিকিৎসকরা ধূমপানকে এড়িয়ে চলতে বলেছেন, কারণ ধূমপান থেকে হার্টের সমস্যা দেখা দেয়, যা করোনা সময়ে বেশি ক্ষতিকর। এর পাশাপাশি ধুমপানে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমিয়ে থাকে বলেও জানানো হয়েছে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.