নয়াদিল্লি: ভারি শিল্পে দীর্ঘদিন ধরেই অচলাবস্থা৷ একের পর এক গাড়ি নির্মাণ সংস্থাগুলি লোকসানের মুখ দেখছে৷ সেই অচলাবস্থা কাটাতে উদ্যোগী কেন্দ্র৷ জানানো হয়েছে ভারি শিল্পকে কিছুটা হলেও স্বস্তি দিতে জিএসটি কমানো হতে পারে৷

এই ইস্যু নিয়ে আগামী ২০ সেপ্টেম্বর গোয়াতে বৈঠকে বসতে চলেছে ডিএসটি কাউন্সিল৷ সেখানেই এই বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হতে পারে৷ সূত্রের খবর ভারি শিল্পে মন্দা কাটাতে জিএসটি ২৮ শতাংশ থেকে ১৮ শতাংশ কমাতে পারে কেন্দ্র৷ তেমনই উদ্যোগ নেওয়া হতে চলেছে ৷

শুক্রবার এসিএমএ অ্যানুয়াল কনক্লেভে এই তথ্য জানান কেন্দ্রীয় অর্থ প্রতিমন্ত্রী অনুরাগ ঠাকুর৷ তিনি বলেন কেন্দ্র সরকারের কাছে বিভিন্ন সংস্থার পক্ষ থেকে আবেদন এসেছে৷ তবে শুধু কেন্দ্র নয়, এই বিষয়ে রাজ্য সরকারগুলিকেও উদ্যোগী হতে হবে বলে তিনি আবেদন করেন৷ তাঁর পরামর্শ রাজ্য সরকারের সঙ্গে এই বিষয়ে আলোচনা করুক গাড়ি নির্মাণ সংস্থাগুলি৷

আরও পড়ুন : রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকে গাড়ি-বাড়ি ঋণ মঞ্জুর হবে এক ঘন্টায়

অনুরাগ ঠাকুরের মতে রাজ্য সরকারগুলিও জিএসটি কাউন্সিলের অবিচ্ছেদ্য অংশ৷ তাই তাঁদের সাহায্য ছাড়া কেন্দ্রের একার পক্ষে কোনও সিদ্ধান্ত নেওয়া সম্ভব নয়৷ সামনেই উৎসবের মরশুম৷ সেকথা মাথায় রেখেই কেন্দ্র জিএসটি কমিয়ে ভারি শিল্পকে চাঙ্গা করতে চাইছে বলে জানিয়েছেন অনুরাগ ঠাকুর৷

এর আগে,সড়ক ও পরিবহণমন্ত্রী নিতিন গডকড়ীও কিছুটা ইঙ্গিত দেন৷ গাড়ি শিল্পে প্রায় ৩.৫ লক্ষ মানুষ কাজ হারিয়েছেন। বহু সংস্থা নিয়মিত উৎপাদন বন্ধ রাখতে বাধ্য হচ্ছে৷ এদিকে সিয়াম প্রেসিডেন্ট রাজন ওয়াধেরার আশংকা, জিএসটি না কমালে অবস্থা আরও খারাপ হবে। পাশাপাশি তাঁদের যুক্তি, বিএস-৬ দূষণ বিধি মেনে গাড়ি তৈরি করা হলে সেই গাড়ি আরও দামি হবে। সেক্ষেত্রে করের হার কমালে কেন্দ্রের আয় ধাক্কা খাবে না। পরিস্থিতি বিচার করেন এমন পরামর্শ ভাল বলেই মনে হয়েছে গডকড়ীর ৷

উল্লেখ্য, ইতিমধ্যেই মারুতির গুরুগ্রাম ও মানেসর কারখানায় ৭ ও ৯ই সেপ্টেম্বর উৎপাদন বন্ধ রাখা হবে বলে জানানো হয়েছে৷ বেশ কিছুদিন ধরেই অটো মোবাইলে সেক্টরে ভাঁটার টান৷ তার প্রত্যক্ষ প্রভাব এসে পড়েছে মারুতির উৎপাদনেও৷ স্টক এক্সচেঞ্জ বলছে মারুতি সুজুকির শেয়ার ২.৫ শতাংশ নিম্নগামী৷ তাই এই দুই শাখায় উৎপাদন দুদিনের জন্য বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত বলে মনে করা হচ্ছে৷

আরও পড়ুন : স্বেচ্ছা অবসরের মাধ্যমে কর্মী সঙ্কোচনের কথা ভাবছে বিএসএনএল

বিশেষজ্ঞরা জুলাই মাসে একটি সমীক্ষার মাধ্যমে জানিয়ে ছিলেন, টানা ন’মাস গাড়ির ধরে বিক্রি কমতে কমতে এখন কার্যত তলানিতে এসে ঠেকেছে। নানা অফারের পাশাপাশি দাম কমিয়েও গাড়ি বিক্রি বাড়ানো যাচ্ছে না৷

অগাষ্ট মাসেই মারুতি সুজুকি ইণ্ডিয়া নিজেদের উৎপাদন ৩৩.৯৯ শতাংশ কমিয়ে দেয়৷ এই নিয়ে সপ্তম মাসে পড়ল তাদের উৎপাদন হ্রাস৷ অগাষ্টে মারুতি ১,১১,৩৭০ টি ইউনিট তৈরি করে, যেখানে গত বছর উৎপাদনের পরিমাণ ছিল ১,৬৮,৭২৫ ইউনিট৷