ক্যানবেরাঃ বিশ্বজুড়ে এই মুহূর্তে করোনা মহামারীর জেরে একাধিক দেশ বিপর্যস্ত। বেশ কিছু দেশে প্রথম দফাতে করোনার বিরুদ্ধে সাফল্য মিললেও ফের দ্বিতীয় পর্যায়ে শুরু হয়েছে সংক্রমণ। সেই সব সম্ভবনার কথা মাথাতে রেখে এবারে অস্ট্রেলিয়ার ভিক্টোরিয়া শহরে জারি করা হল কড়া নিষেধাজ্ঞা। পাশপাশি সম্পূর্ণ রুপে লক ডাউন করা হল মেলবোর্নে।

একাধিক দেশে আক্রান্তের হার ক্রমেই বেড়ে চলেছে। ষ্টেট প্রিমিয়ার দ্যানিয়েল আন্দ্রেউ জানিয়েছেন গত ২৪ ঘণ্টার মধ্যে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৬৭১ জন। পাশপাশি মারা গিয়েছেন ৭ জন। এছাড়া ৩৮০ জনের বেশি জন ইতিমধ্যে হাসপাতালে রয়েছেন। যার মধ্যে ৩৮ জন রয়েছেন ইন্টেন্সিভ কেয়ারে।

তিনি এও জানিয়েছেন রবিবার সন্ধ্যে ৬ টায় তিনি সব দিক দেখার পরে বিপর্যয়( state of disester) ঘোষণা করবেন। একই সঙ্গে পরিস্থিতির দিকে নজর রাখার জন্য নির্দেশ দেওয়া হবে প্রশাসনিক কর্তাদের। এছাড়া আগামী ছয় সপ্তাহের জন্য মেলবোর্নে জারি করা হবে কার্ফু। যা থাকবে রাত ৮ টা থেকে ভোর ৫ টা পর্যন্ত।

অর্থাৎ নতুন করে এই সংক্রমনের হার বৃদ্ধি পাওয়াতে যাতে কোন বিপদ না ঘটে সেই কারণে আগাম এই সিদ্ধান্ত নিতে চলেছে অস্ট্রেলিয়া প্রশাসন। সাধারণ মানুষের এই ভাবে আক্রান্ত হওয়া এবং মারা যাওয়ার বিষয়টি কোন ভাবে মেনে নেওয়া যায় না বলেও জানিয়েছেন আন্দ্রেউ।

আর সেই কারণেই বাধ্য হয়ে কড়া পদক্ষেপ নিতে হচ্ছে। স্থানীয় ভিক্টোরিয়াতেও থাকবে কড়া শাসন। ওই রাজ্য জুড়ে সমস্ত স্কুল আপাতত বন্ধ রাখা হবে। এছাড়া বিভিন্ন চাইল্ড কেয়ার সেন্টার গুলিও বন্ধ রাখা হবে। সমগ্র অস্ট্রেলিয়াতে স্থানীয় পণ্য পরিবহনের ক্ষেত্রে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিয়ে থাকে এই শহর।

কিন্তু এই সংক্রমনের কারণে গোটা দেশ থেকে কিছুদিনের জন্য ছিন্ন কড়া হয়েছে এই রাজ্যকে। আর পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখার জন্য জারি কড়া হয়েছে কড়া নির্দেশিকা। এছাড়াও নিউ সাউথ ওয়েলসেও রবিবার নতুন করে ১২ জনের সংক্রমনের খবর সামনে এসেছে। ইতিমধ্যে সেখানকার মানুষদের মাস্ক ব্যবহার করার নির্দেশ জারি কড়া হয়েছে। এর আগে প্রথম দফার লক ডাউন সফল হয়েছিল অস্ট্রেলিয়াতে। কমে গিয়েছিল আক্রান্তের হার। পাশপাশি দ্রুত পরিস্থিতি সব স্বাভাবিকের চেষ্টা কড়া হচ্ছিল। কিন্তু পরিস্থিতির কারণে ফের লক ডাউনের পন্থা ধরল অস্ট্রেলিয়া। জানা গিয়েছে কয়ারেন্তাইন সেন্টারের নিরাপত্তা রক্ষীদের ভুল কিছু পদক্ষেপের জন্যই ভিক্তরিয়াতে ফের হানা দিল করোনা ভাইরাস।

অস্ট্রেলিয়ার অন্যতম জনপ্রিয় এবং গুরুত্বপূর্ণ শহর এই ভিক্টোরিয়া। পরিস্থিতি সামাল দেওয়ার জন্যই আপাতত দেশের থেকে ছিন্ন রাখা হল এই শহরকে। পাশপাশি এই এল্কাকাতে স্থানীয়দের যাতে কোন সমস্যার মুখে পড়তে না হয় সেই দিকেও নজর রাকছে প্রশাসন।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।