পারথ: অস্ট্রেলিয়ার সৌজন্যে ইনিংস হারের লজ্জা এড়ালেও পারথে গোলাপি বলে দিন-রাতের টেস্টে পরাজয় এড়াতে পারল না নিউজিল্যান্ড। একদিন বাকি থাকতেই সিরিজের প্রথম টেস্টে কিউয়িদের ২৯৬ রানের বিশাল ব্যবধানে পরাজিত করল অজিরা।

অস্ট্রেলিয়ার ৪১৬ রানের জবাবে ব্যাট করতে নেমে নিউজিল্যান্ড তাদের প্রথম ইনিংসে অল-আউট হয়ে যায় ১৬৬ রানে। ২৫০ রানের বিশাল লিড থাকা সত্ত্বেও নিউজিল্যান্ডকে ফলো-অন করতে বাধ্য করেনি অস্ট্রেলিয়া। পরিবর্তে নিজেরাই দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নামে। দ্বিতীয় দফায় ৯ উইকেটে ২১৭ রান তুলে ইনিংসের সমাপ্তি ঘোষণা করে অজিরা। অর্থাৎ জয়ের জন্য নিউজিল্যান্ডের সামনে লক্ষ্যমাত্রা দাঁড়ায় ৪৬৮ রানের। শেষ ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে নিউজিল্যান্ড অল-আউট হয়ে যায় ১৭১ রানে।

দ্বিতীয় ইনিংসে কিউয়িদের হয়ে সর্বোচ্চ ৪০ রান করেন বিজে ওয়াটলিং। ৩৩ রান করে আউট হন কলিন ডি’গ্র্যান্ডহোম। এছাড়া রস টেলর ২২, হেনরি নিকোলস ২১, টম লাথাম ১৮ ও ক্যাপটেন কেন উইলিয়ামসন ১৪ রান করে আউট হন। বাকিরা কেউই ব্যাট হাতে উল্লেখযোগ্য অবদান রাখতে পারেননি।

প্রথম ইনিংসে ৫ উইকেট নেওয়া মিচেল স্টার্ক দ্বিতীয় দফায় ৪৫ রানের বিনিময়ে ৪টি উইকেট দখল করেন। ৬৩ রানে ৪টি উইকেট নেন নাথান লায়ন। ৩১ রানে ২টি উইকেট প্যাট কামিন্সের। দুই ইনিংস মিলিয়ে ৯ উইকেট নেওয়া স্টার্ক ম্যাচের সেরা ক্রিকেটার নির্বাচিত হন।

উল্লেখ্য’ প্রথম ইনিংসে অস্ট্রেলিয়ার হয়ে অনবদ্য শতরান করেন মার্নাস ল্যাবুশেন। তিনি দ্বিতীয় ইনিংসেও হাফ-সেঞ্চুরি করেন। দুই ইনিংসে তাঁর ব্যক্তিগত সংগ্রহ যথাক্রমে ১৪৩ ও ৫০। নিউজিল্যান্ডের হয়ে প্রথম ইনিংসে ৮০ রানের লড়াকু ইনিংস খেলেন রস টেলর। টিম সাউদি দুই ইনিংস মিলিয়ে ৯টি উইকেট নিলেও দল হারায় ব্যর্থ হয় তাঁর লড়াই।

কলকাতার 'গলি বয়'-এর বিশ্ব জয়ের গল্প