বেঙ্গালুরু: বিশাখাপত্তনমে লো-স্কোরিং ম্যাচ রূপ নিয়েছিল শেষ বলের থ্রিলারের৷ চিন্নাস্বামীতে হাই-স্কোরিং ম্যাচও শেষ হল উত্তেজনার মোড়কে৷ চিত্রনাট্যটাও ছিল কার্যত একই রকম৷ পেনাল্টিমেট ওভারে জসপ্রীত বুমরাহর দুরন্ত বোলিং এবং শেষ ওভারে ভারতের চাপ বজায় রাখতে না পারা৷ ফলে পরিণতিও হল একই রকমের৷ শেষ ওভারের রোমাঞ্চকর লড়াইয়ে ভারতকে হারাল অস্ট্রেলিয়া৷ সঙ্গে ভারতের মাটিতে প্রথমবার কোনও দ্বি-পাক্ষিক টি-২০ সিরিজ জিতল অজিরা৷

ভাইজ্যাগে অস্ট্রেলিয়ার জয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিয়েছিলেন গ্লেন ম্যাক্সওয়েল৷ বেঙ্গালুরুতেও তাই৷ তফাৎ হল চিন্নাস্বামীতে অনেক বেশি বিধ্বংসী ব্যাটিং করেন ম্যাক্সওয়েলে৷ দুরন্ত শতরান করে ভারতকে কার্যত একার হাতেই বিধ্বস্ত করেন তিনি৷ প্রথম ম্যাচের মতো এদিনও তাঁকে যথাযোগ্য সঙ্গত করেন ডার্সি শর্ট৷

আরও পড়ুন: ইমরানকে সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে লড়তে বললেন ওয়াসিম

টসে জতি অজি অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চ প্রথমে ব্যাট করার আমন্ত্রণ জানান ভারতকে৷ বিরাট কোহলির হাফসেঞ্চুরিতে ভর করে ভারত নির্ধারিত ২০ ওভারে ৪ উইকেট হারিয়ে ১৯০ রান তোলে৷ পালটা ব্যাট করতে নেমে অস্ট্রেলিয়া দু’বল বাকি থাকতে জয়ের লক্ষ্যে পৌঁছে যায়৷ ১৯.৪ ওভারে ৩ উইকেটের বিনিময়ে ১৯৪ রান তুলে ম্যাচ তথা সিরিজের দখল নেয় অজিরা৷

জয়ের জন্য শেষ দু’ওভারে অস্ট্রেলিয়ার দরকার ছিল ১৪ রান৷ ১৯তম ওভারে বুমরাহ মাত্র ৫ রান খরচ করেন৷ জিততে হলে শেষ ওভারে ৯ রান তুলতে হত অজিদের৷ প্রথম দু’টি বলে দু’টি সিঙ্গল নেয় অস্ট্রেলিয়া৷পরের দু’টি বলে একটি ছক্কা ও একটি চার ম্যাচে ম্যাচে যবনিকা টেনে দেন ম্যাক্সওয়েল৷ তিনি ১১৩ রানে অপরাজিত থাকেন৷ ৫০ বলে শতরানের গণ্ডি টপকানো গ্লেন ৫৫ বলের ইনিংসে ৭টি চার ও ৯টি ছক্কা মারেন৷ আন্তর্জাতিক টি-২০ কেরিয়ারে ম্যাক্সওয়েলের এটি তৃতীয় শতরান৷

আরও পড়ুন: অজিদের বিরুদ্ধে চিন্নাস্বামীতে বিরাটরাজ

ডার্সি শর্ট ২৮ বলে ৪০ ও পিটার হ্যান্ডসকম্ব ১৮ বলে অপরাজিত ২০ রানের যোগদান রাখেন৷অ্যারন ফিঞ্চ ৮ ও মার্কাস স্টোইনিস ৭ রানে আউট হন৷ বিজয় শঙ্কর দু’টি ও সিদ্ধার্থ কউল একটি উইকেট নেন৷

ভারত এই ম্যাচে বিশ্রাম দেয় ওপেনার রোহিত শর্মাকে৷ বদলে প্রথম ম্যাচে রিজার্ভ বেঞ্চে থাকা শিখর ধাওয়ানকে সুযোগ দেওয়া হয়৷ ধাওয়ানের সঙ্গে ওপেন করতে নেমে লোকেশ রাহুল আরও একবার বড় রানের ইনিংস গড়েন৷ তবে ব্যক্তিগত হাফসেঞ্চুরির দোরগোড়া থেকে ফিরতে হয় তাঁকে৷ ৩টি চার ও ৪টি ছক্কার সাহায্যে ২৬ বলে ৪৭ রান করে আউট হন রাহুল৷

আরও পড়ুন: সিরিজ জয়ের হাতছানি ভারতের সামনে

ধাওয়ানের আউট নিয়ে বিতর্কের অবকাশ থেকেই যায়৷ স্টোইনিস যথাযথভাবে ক্যাচ ধরেছিলেন কি না তা নিয়ে তৃতীয় আম্পায়ারের সিদ্ধান্তও ভারতীয় সমর্থকদের খুশি করতে পারবে কি না সন্দেহ৷ কেননা, টেলিভিশন রিপ্লে দেখে মনে হচ্ছিল বুঝি বল স্টোইনিসের হাতে ধরা পড়ার আগে মাটি ছুঁয়েছিল৷ ধাওয়ান ২৪ বলে ১৪ রান করে আউট হন৷

ঋষভ পন্ত আরও একবার ব্যর্থ হন৷ ৬ বলে মাত্র ১ রান করে আউট হন তিনি৷ কোহলির সঙ্গে জুটি বেঁধে ধোনি চতুর্থ উইকেটে ১০০ রান যোগ করেন৷ শেষে ৩টি চার ও ৩টি ছক্কার সাহায্যে ২৩ বলে ৪০ রান করে আউট হন ধোনি৷ কোহলি টি-২০ কেরিয়ারের ২০তম হাফসেঞ্চুরি করেন চিন্নাস্বামীতে৷ ২টি চার ও ৬টি ছক্কার সাহায্যে ৩৮ বলে ৭২ রান করে আপরাজিত থাকেন ভারত অধিনায়ক৷ দীনেশ কার্তিক নটআউট থাকেন ৩ বলে ৮ রান করে৷

আরও পড়ুন: বিশ্বকাপ থেকে দুই শুটারকে ডেকে নিল বায়ুসেনা

অস্ট্রেলিয়ার হয়ে একটি করে উইকেট নেন বেহরেনডর্ফ, কুল্টার-নাইল, কামিন্স ও ডার্সি শর্ট৷ ম্যাচের সেরা হয়েছেন ম্যাক্সওয়েল৷ সিরিজ সেরাও হয়েছেন তিনি৷