স্টাফ রিপোর্টার, মালদহ: পাওনা টাকা চাওয়ার ‘অপরাধে’ ধারালো অস্ত্র দিয়ে খুনের চেষ্টার অভিযোগ উঠল এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে। গুরুতর আহত অবস্থায় ওই আক্রান্ত ব্যক্তি বর্তমানে মালদহ মেডিকেল কলেজ অ্যান্ড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। এদিকে ঘটনার পর থেকেই পলাতক রয়েছে অভিযুক্ত। তার খোঁজে তল্লাশি শুরু করেছে কালিয়াচক থানার পুলিশ। শুক্রবার ঘটনাটি ঘটেছে, মালদহ জেলার কালিয়াচক থানার চড় বাহাদুরপুর বিনুটোলা গ্রামে।

পুলিশ জানিয়েছে, আহত ব্যক্তির নাম ফাইজুল শেখ(৪২)। তাঁর বাড়ি কালিয়াচক থানার চড় বাহাদুরপুর বিনুটোলা গ্রামে। স্থানীয় ও পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে, ফাইজুল শেখ ও শাহজাহান শেখ একসঙ্গে মাটির ব্যবসা করতেন। ব্যবসা সূত্রেই ফাইজুল শাহজাহানের কাছে ৬০ হাজার টাকা পেতেন। বারবার চেয়েও সেই টাকা ফেরত দিচ্ছিল না শাহজাহান। এই নিয়ে তাদের মধ্যে বেশ কিছুদিন ধরে বিবাদও চলছিল।

বৃহস্পতিবার গ্রামেরই একটি দোকানে শাহজাহানকে দেখতে পেয়ে ফের তার কাছে টাকা ফেরত চায় ফাইজুল। এই নিয়ে দুজনের মধ্যে বচসাও বেঁধে যায়। অভিযোগ, সেই সময় শাহজাহান ও তার ছেলে নাসির শেখ ফাইজুলকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপায় এবং এলোপাথাড়ি আঘাত করতে শুরু করে। এই ঘটনায় গুরুতর জখম অবস্থায় স্থানীয়রা ফাইজুলকে উদ্ধার করে মালদহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়। বর্তমানে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ওই হাসপাতালেই চিকিৎসাধীন রয়েছে সে।

এদিকে এই ঘটনায় ফাইজুলের পরিবারের তরফে কালিয়াচক থানায় অভিযুক্তের বিরুদ্ধে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। যদিও ঘটনার পর থেকেই ফেরার রয়েছে অভিযুক্ত বাবা ও ছেলে। গোটা বিষয়টি খতিয়ে দেখে ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে কালিয়াচক থানার পুলিশ।