স্টাফ রিপোর্টার,তমলুক: করোনা আতঙ্কের মাঝেই নয় মাসের অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূকে পুড়িয়ে হত্যার চেষ্টার অভিযোগ উঠল শ্বশুরবাড়ির সদস্যদের বিরুদ্ধে। চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে, পূর্ব মেদিনীপুর জেলা কাঁথি থানার চালতি এলাকায়।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ওই অগ্নিদগ্ধ গৃহবধূর নাম রীনা বিবি(২০)। তাঁর স্বামীর নাম আবদুল মজিদ। বছর দেড়েক আগে একই গ্রামের বাসিন্দা রীনার সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে তাঁর। এরপর বাড়ির অমতেই বিয়ে করে দুজন।

এদিকে বাড়ির অমতে বিয়ে করায় তাঁদের এই সম্পর্ক মেনে নিতে পারেননি আবদুলের বাবা-মা। ফলে একই ছাদের তলায় থাকলেও হাঁড়ি আলাদা ছিলো তাঁদের। এই অবস্থায় আবদুলের অনুপস্থিতিতে প্রায় প্রতিদিনই রীনা বিবির উপর চলত শ্বশুর বাড়ির লোকের অকথ্য অত্যাচার।

সোমবার বিকেলেও ফের একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটে। এদিন বিকেলে একটু দরকারে বাড়ির বাইরে বেরিয়ে যায় আবদুল। ফলে বারিতে একাই ছিলো রীনা বিবি। এই সুযোগে রীনা বিবিকে একা পেয়ে শ্বাশুড়ি সহ পরিবারের অন্যান্য লোকেরা কেরোসিন তেল ঢেলে তাঁর গায়ে আগুন লাগিয়ে দেয় বলে অভিযোগ।

এদিকে রীনার চিৎকার শুনে তাঁকে বাঁচাতে ছুটে আসেন স্বামী আবদুল। কোনও রকমে আগুন নেভান তিনি। শুধুতাই নয়, আগুন নেভাতে গিয়ে আহত হন তিনিও।এরপর প্রতিবেশীদের সহযোগিতার তাঁদের উদ্ধার করে কাঁথি হাসপাতালের ভরতি করা হয়। বর্তমানে ওই হাসপাতালে আশঙ্কা জনক অবস্থায় চিকিৎসাধীন রয়েছে।

এদিকে ঘটনার পর থেকেই পলাতক অভিযুক্তেরা। গোটা বিষয়টি খতিয়ে দেখে ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে কাঁথি মহিলা থানার পুলিশ। অভিযুক্তদের খোঁজে তল্লাশি শুরু করেছে পুলিশ।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ