স্টাফ রিপোর্টার, নন্দীগ্রাম : ভোটের আবহে ফের উত্তপ্ত নন্দীগ্রাম। সোমবার শুভেন্দুর সভার আগে নন্দীগ্রাম থানা এলাকার নন্দীগ্রাম ১ ব্লকের মহম্মদপুর ৫২ নং বুথ এলাকার সক্রিয় বিজেপি কর্মীদের দোকানে হামলা, মারধর ও বাড়িতে ভাঙচুর চালানো হয় বলে অভিযোগ।

রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীরাই পরিকল্পনা করে আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনের আগে এই এলাকায় সন্ত্রাসের পরিবেশ তৈরী করার চক্রান্ত করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

বিজেপির তরফে অভিযোগ করে বলা হয়েছে, গত ১৮ জানুয়ারী তৃনমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সভার কয়েক দিন আগে থেকে এই ভাবে মাঝেমধ্যেই শাসক দল আশ্রিত দুষ্কৃতীরা হামলা চালাছে। রবিবার রাতেও একই ঘটনা ঘটেছে।এই হামলার জেরে আহত হয়েছে ২ জন সক্রিয় বিজেপি কর্মী।

অভিযোগ আজ আচমকা বিজেপি কর্মীদের দোকান ও বাড়িতে হামলা , ভাঙচুর চালানো হয়। হামলাকারীরা কর্মী ও তাঁদের পরিবারের সদস্যদের মারধর করে।

এই হামলায় গুরুত্বর আহত হয়েছেন সক্রিয় ২ জন বিজেপি কর্মী। আহতদের প্রথমে রেয়াপাড়া গ্রামীন হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় ও পরে একজন কে তমলুকে জেলা হাসপাতালে ভরতি করা হয়।

এদিকে পূর্ব মেদিনীপুরের তমলুকে আজ সভা করবেন শুভেন্দু অধিকারী। গত ১৯ জানুয়ারি হেঁড়িয়ায় শুভেন্দুর সভায় যোগ দিতে আসার পথে খেজুরির কয়েকজন বিজেপির কর্মীর ওপর হামলা হয় বলে অভিযোগ।

ওই ঘটনায় অভিযুক্তদের গ্রেফতারের দাবিতে আজ তমলুকে পুলিশ সুপারের অফিসের সামনে বিক্ষোভ কর্মসূচি রয়েছে বিজেপি নেতার। তার আগে তিনি তমলুকের হসপিটাল মোড় থেকে মানিকতলায় পুলিশ সুপারের অফিস পর্যন্ত মিছিল করে আসবেন।সাং সদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় শুভেন্দুর বিরুদ্ধে যে যে অভিযোগ করেছেন, আজ তমলুকের সভা থেকে তাঁর জবাব দেবেন বলে জানিয়েছেন শুভেন্দু।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।