স্টাফ রিপোর্টার, জলপাইগুড়ি: গত একমাস ধরে শহরে পর পর এটিএম প্রতারণায় নাকাল সাধারণ মানুষ। এটিএম কার্ড ক্লোন করে টাকা জালিয়াতির ঘটনায় পুলিশের জালে ধরা পড়েছে বড়সড় বিদেশি চক্রের মাথা। এবার গ্যাস কাটার দিয়ে এটিএম কেটে লক্ষাধিক টাকা নিয়ে পালাল দুষ্কৃতীরা। দুঃসাহসিক এই চুরির ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে এলাকা জুড়ে। ঘটনাটি ঘটেছে, জলপাইগুড়ি জেলার বেগুনটারি মোড় এলাকার স্টেটব্যাংকের একটি এটিএমে।

পুলিশ জানিয়েছে, যে এটিএমটিতে চুরির ঘটনা ঘটেছে সেটি প্রহরাবিহীন ছিল। ফলে ওই এটিএমের সিসিটিভি ফুটেজ দেখে অপরাধীদের শনাক্ত করার চেষ্টা চলছে। গোটা বিষয়টি খতিয়ে দেখে ঘটনার তদন্তে শুরু করেছে কোতোয়ালি থানার পুলিশ।

পুলিশ জানিয়েছে, রবিবার ভোর রাতের দিকে ওই এটিএম চুরির ঘটনাটি ঘটে। গ্যাস কাটার দিয়ে এটিএম মেশিন কেটে দুষ্কৃতীরা প্রায় লক্ষাধিক টাকা হাতিয়ে পালিয়ে গিয়েছে। পলাতক দুষ্কৃতীদের উদ্দেশ্যে তল্লাশি শুরু করেছে পুলিশ।

এদিকে জনবহুল ওই এলাকায় সাত সকালে এইরকম চুরির ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে স্থানীয় ব্যবসায়ী এবং বাসিন্দাদের মধ্যে। প্রহরাবিহীন ওই এটিএমে স্থায়ী নিরাপত্তারক্ষী রাখার দাবি জানিয়েছেন বাসিন্দারা।

স্থানীয় ব্যাবসায়ী গৌতম বোস জানান, ‘প্রথম থেকেই এখানে কোনও নিরাপত্তা ব্যাবস্থা নেই। আমরা এখানে ব্যাবসা করি। কিছুদিন আগেও এখানকার এক মোবাইলের দোকান থেকে প্রচুর মোবাইল চুরি গিয়েছে। পুলিশি পাহারা থাকা সত্বেও কিভাবে এসব হচ্ছে প্রশাসনের তা গুরুত্ব দিয়ে দেখা উচিত।’

জলপাইগুড়ি পৌরসভার চেয়ারম্যান ইন কাউন্সিলর সৈকত চট্টোপাধ্যায় জানান, ‘শনিবার রাত ১০.৫৪ নাগাদ শেষ টাকা তোলা হয়েছিল এখান থেকে। মনে হচ্ছে কোনও প্রফেশনাল গ্যাং এই কাজ করেছে।’

এই বিষয়ে, কোতোয়ালি থানার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শ্রীকান্ত জগন্নাথরাও ইলওয়াড জানান, ‘আমরা সি সি টিভি দেখে অপরাধীদের শনাক্ত করার চেষ্টা চালাছি। খুব তাড়াতাড়ি এর কিনারা হবে।’

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ