সোয়েতা ভট্টাচার্য,কলকাতা: আচমকা ফোন। আর ফোনে বলা হচ্ছে আপনার এটিএম কার্ড ব্লক করা হয়েছে। একথা শুনেই চিন্তিত হয়ে পরছেন মানুষ। কারণ এই যুগে এখন এটিএম কার্ড ছাড়া রাস্তায় বের হওয়ার কথা অধিকাংশ ব্যক্তিই ভাবতে পারেন না। আর সেই সুযোগ নিয়েই এটিএম প্রতারকরা খুব সহজেই কার্ড ব্লকের ছক কষে এটিএম কার্ডের নম্বর বা অন্যান্য তথ্য জেনে নিচ্ছে।

ফোন করে বলা হচ্ছে সব তথ্য দিলেই কোনও সমস্যায় পড়তে হবে না। শুধু তাই নয় নিজেদের ব্যাঙ্ক কর্মী বলে পরিচয় দিচ্ছেন জালিয়াতরা। কেউ কেউ তাদের কথায় বিশ্বাস করে ফাঁদে পা দিয়ে ফেলছেন। আর এই ফাঁদে পা দিতেই অ্যাকাউন্ট থেকে উধাও হয়ে যাচ্ছে টাকা। সেই অ্যাকাউন্ট হোল্ডার কিছুই বুঝতে পারছে না। দ্বারস্থ হচ্ছেন পুলিশের কাছে। অভিযোগ পেয়ে তদন্ত শুরু করছেন তদন্তকারীরা

নিচে অভিযোগকারী রাজু দেবনাথের তোলা অভিযুক্ত ব্যক্তির ছবিটি দেখুন

কিছু ঘটনায় অভিযুক্তদের গ্রেফতার করা হচ্ছে। কিছু ক্ষেত্রে অধরাই রয়ে যাচ্ছে অপরাধী। তবে এই জালিয়াতি থেকে কোনও ভাবেই সম্পুর্ণ নিস্তার পাচ্ছেন না শহরবাসী। চলতি সপ্তাহে দক্ষিণ কলকাতার এক বাসিন্দার কাছে এমনই একটি ফোন আসে। তিনি কলকাতা 24×7 কে জানান,”ফোনে আমাকে জানানো হয় আমার এটিএম কার্ডটি ব্লক হয়েছে। প্রথমে তাদেরকে ব্যাঙ্ক কর্মী বলে বিশ্বাস করলেও পরে আমার কার্ড নম্বর চাওয়ায় আমি বুঝতে পারি এই ব্যাক্তি ব্যাঙ্কের কর্মী হতে পারে না। তাকে নম্বর দেওয়ায় আপত্তি জানালে রিতিমতো হুমকি দেওয়া হয় আমায়। সন্দেহ হয় আমার৷

আমি সেই ব্যাক্তিকে এমন একটি ব্রাঞ্চের নাম বলি যেখানে আমার কোনও অ্যাকাউন্ট নেই। আমার টোপ গিলে ফেলে এই ব্যাক্তি। সে বলে সেই ব্রাঞ্চ থেকেই ফোন করা হচ্ছে। একথা বলতেই বুঝতে পারি এরা জালিয়াত চক্রের সদস্য। তাদের কে নম্বর দিতে আপত্তি জানাতেই আমাকে বলা হয় আমার অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা কেটে নেওয়া হবে। শুধু তাই নয় ফোন রেখে দেওয়ার পরে সেই নম্বর থেকে একটি রাষ্ট্রায়াত্ত ব্যঙ্কের নাম করে একটি এসএমএম পাঠান হয়। এসএমএস করে আমাকে জানানো হয় আমার ××××××××××× নম্বর অ্যাকাউন্ট থেকে দশ হাজার টাকা কেটে নেওয়া হবে।টাকা ফেরত পেতে তাদেরকে সব রকম তথ্য জানাতে হবে।”
ঘটনার পিছনে জালিয়াতদের ছক বুঝে এসএমএসের উত্তর দেননি ওই ব্যক্তি। তবে এই ঘটনার লিখিত অভিযোগও জানানি থানায়।

শহরে এটিএম জালিয়াতি চক্রের রমরমা, আতঙ্কে শহরবাসী

এটিএম প্রতারকরা খুব সহজেই কার্ড ব্লকের ছক কষে এটিএম কার্ডের নম্বর বা অন্যান্য তথ্য জেনে নিচ্ছে। শহরে এটিএম জালিয়াতি চক্রের রমরমা, আতঙ্কে শহরবাসী৷ বিস্তারিত পড়তে ক্লিক করুন http://bit.ly/2CfuQhnরিপোর্ট: Soyeta Ghosh Bhattacharjee

Kolkata24x7 यांनी वर पोस्ट केले शुक्रवार, ११ जानेवारी, २०१९

অন্যদিকে গত বছর শহরে এটিএম জালিয়াতির ঘটনার তদন্তে নেমে কলকাতা পুলিশ এই চক্রের অন্যতম চাঁই গ্রেফতার করে। সাময়িক ভাবে কয়েকদিন এই ঘটনা বন্ধ থাকলেও ফের জালিয়াতদের ফেক কলে নাজেহাল হতে হচ্ছে সাধারণ মানুষকে। অনেকে তথ্য না দিলেও চিন্তায় থাকছেন। ছুঁটে যাচ্ছেন এটিএমে।বারবার দেখছেন তাদের অ্যাকাউন্টের টাকা সুরক্ষিত রয়েছে কিনা। পুলিশ কর্তারা জানাচ্ছে এই জালিয়াতদের ধরতে পুলিশ সক্রিয় রয়েছে।

ফাইল ছবি

কলকাতা পুলিশের এক আধিকারীক বলেন,” এবিষয়ে সাধারণ মানুষকে সতর্ক হতে হবে। ফোন আসলেই পুলিশকে জানান। যে নম্বর থেকে ফোন আসছে সেটিকে ট্রেস করলে আমরা এই জালিয়াতি চক্রের তথ্য পাব।” কলকাতা পুলিশ বিগত বছরগুলিতে এই প্রতারকদের থেকে শহরবাসীদের বাঁচাতে বার বার সচেতন করছেন। এমনকি লালবাজার কর্তারা সোশ্যাল মিডিয়াকে ব্যবহার করেও তাদের এই সচেতনতার অভিযান চালাচ্ছেন।

পুলিশের পরামর্শ
* নিজের ওটিপি…বা পিন গোপন রাখুন
* ফোনে কোনও তথ্য জানাবেন না
* ফোন করে ব্যাঙ্কের কর্মী হিসেবে নিজেদের পরিচয় দিলেও কোনও পিন বা অন্য জরুরী তথ্য জানাবেন না
* মনে রাখবেন ব্যাঙ্ক কখনই কোনও গোপন নম্বর ফোনে শেয়ার করতে বলে না
*এটিএমে ঢুকে কোনও অপরিচিত ব্যাক্তির সাহায্য নেবেন না
*কোনও অজানা নম্বর থেকে এসএমএস করে অ্যাকাউন্টের তথ্য চাইলে দেবেন না
*এটিএম কার্ডের নম্বর, সিভিভি নম্বর বা কার্ডের এক্সপাইরি ডেট কাউকে জানাবেন না
*রক্ষীহীন এটিএম কাউন্টার এড়িয়ে চলার চেষ্টা করুন
*কোনও সন্দেহজনক ফোন বা ঘটনা ঘটলেই পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করুন