হাওড়া: গ্যাস কাটার দিয়ে এটিএম মেশিন ভেঙে প্রায় ১৮ লক্ষ টাকা লুঠ করে চম্পট দিল দুষ্কৃতিরা। সোমবার রাতে ঘটনাটি ঘটেছে গ্রামীণ হাওড়ার বাগনানের বাইনান এলাকায়।

জানা গিয়েছে, বাগনানের বড়োপোল এলাকায় ব্যাঙ্ক অফ বরোদার একটি শাখা রয়েছে। সেই শাখার পাশেই সংশ্লিষ্ট ব্যাঙ্কটির একটি এটিএম রয়েছে। মঙ্গলবার সকালে এটিএম মেশিনের নিম্নাংশটি কাটা অবস্থায় দেখতে পান প্রাতঃভ্রমণকারীরা। খবর দেওয়া হয় বাগনান থানায়। খবর পেয়েই ঘটনাস্থলে আসে বাগনান থানার পুলিশ। পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, দুষ্কৃতিরা এটিএম মেশিন কেটে টাকা লুট করে চম্পট দিয়েছে। মেশিনের গায়ে কালো ঝলসানো দাগ রয়েছে।

পুলিশের প্রাথমিক অনুমান, এটা কোনো অভিজ্ঞ ডাকাত দলের কাজ। তারা গ্যাস কাটার দিয়ে মেশিনের নীচের অংশ কাটে। তারপর সেখানে থাকা টাকা নিয়ে চম্পট দেয়। পুলিশ জানিয়েছে, রাত ১ টা থেকে ২ টোর মধ্যে এই অপারেশন করেছে দলটি। সিসিটিভি ফুটেজে ধরা পড়েছে মাত্র ১২ মিনিটের মধ্যে তারা এই মেশিন কাটা এবং সেখান থেকে টাকা লুট করে নেওয়ার ঘটনা ঘটিয়েছে। জনা চারেক এই অপারেশনে অংশ নিয়েছিল বলে জানা গেছে । তবে এই ঘটনার সঙ্গে বাইরের কোনো দল নাকি স্থানীয় কারো সংযোগ রয়েছে তা নিয়ে পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে।

পুলিশের বক্তব্য, যদি এলাকাটি মুম্বই রোডের কাছে হত তাহলে বোঝা যেত ঘটনার সঙ্গে বাইরের কোনো দল জড়িত রয়েছে। কিন্তু এলাকাটা মুম্বাই রোড থেকে প্রায় মিনিট দশেক এর বেশি ভেতরে। ফলে তদন্ত করে দেখা হচ্ছে এই টাকা লুঠের ঘটনা বাইরের কোনো দলের কাজ নাকি স্থানীয় কেউ জড়িত রয়েছে। খবর পেয়ে আসেন ব্যাঙ্ক কর্তারা। তারা বাগনান থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন। প্রাথমিকভাবে মনে করা হচ্ছে ১৫ থেকে ১৮ লক্ষ টাকা লুট হয়েছে। এ ব্যাপারে হিসাব নিকাশ করা হচ্ছে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.