পানাজি: এগিয়ে থেকেই ম্যাচটা শুরু করেছিল এটিকে-মোহনবাগান। কেবল প্রতিপক্ষ অজানা থাকায় ভয়টা কাজ করছিল। কিন্তু সময় যত এগোল আইএসএলের প্রথম ডার্বিতে নিজের চালে রবি ফাওলারকে কিস্তিমাত করলেন আন্তোনিও লোপেজ হাবাস। এসসি ইস্টবেঙ্গলকে ২-০ গোলে হারিয়ে আইএসএলের অভিষেক ডার্বির রং সবুজ-মেরুন। এটিকে-মোহনবাগানের হয়ে দ্বিতীয়ার্ধে জোড়া গোল রয় কৃষ্ণা এবং সুপার-সাব মনবীর সিং’য়ের।

কেরালা ব্লাস্টার্স ম্যাচের প্রথম একাদশে তিনটি পরিবর্তন এনে এদিন ইস্টবেঙ্গলের বিরুদ্ধে শুরু করেছিলেন আন্তোনিও লোপেজ হাবাস। প্রণয় হালদার, এদু গার্সিয়ার বদলে জয়েশ রানে এবং ডেভিড উইলিয়ামসকে এদিন একাদশে আনেন স্প্যানিশ কোচ। চোট পাওয়া সুসাইরাজের পরিবর্তে শুভাশিসের আসাটা ছিল অবশ্যম্ভাবী। অন্যদিকে আপফ্রন্টে বলবন্তকে রেখে শুরু করেছিলেন রবি ফাওলার । মাঝমাঠে মাত্তি স্টেইনম্যানের সঙ্গে লিংদোর পরিবর্তে লোকেন মিতেইকে জুড়ে কিছুটা চমক দেন ব্রিটিশ কোচ। পজেশনাল ফুটবল খেলে বিপক্ষ রক্ষণ ভাঙার চেষ্টা করলেও তিরি-সন্দেশের রক সলিড জুটি ভাঙার মত কোনও ইতিবাচক সুযোগ প্রথমার্ধে ইস্টবেঙ্গল বের করতে পারেনি।

অন্যদিকে পরিচিত ঢং’য়ে রক্ষণ সামলে উইং-নির্ভর ফুটবলে ইস্টবেঙ্গল রক্ষণ ভাঙার কাজ করেন রয় কৃষ্ণা-ডেভিড উইলিয়ামসরা। কিন্তু প্রথম ৪৫ মিনিট কোনও দল গোল তুলে নিতে না পারলেও ইতিবাচক সুযোগটা একমাত্র এসেছিল এটিকে-মোহনবাগানের কাছেই। কিন্তু বক্সের মধ্যে জাভি হার্নান্দেজের শট বাঁ-দিকে ঝাঁপিয়ে পড়ে দারুণভাবে রক্ষা করেন দেবজিত মজুমদার। এরপর দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে ইস্টবেঙ্গল নিজেদের গুছিয়ে নেওয়ার আগেই গোল করে যান রয় কৃষ্ণা। প্রথমার্ধে রক্ষণকে ভরসা দেওয়া ড্যানি ফক্স-স্কট নেভিল জুটি দ্বিতীয়ার্ধের তিন মিনিটের মধ্যেই আত্মসমর্পণ করেন ফিজি স্ট্রাইকারের কাছে। জয়েশ রানে হয়ে জাভি হার্নান্দেজের আয়ত্ত থেকে বেরিয়ে যাওয়া একটি ইস্টবেঙ্গলের এক ডিফেন্ডারের পায়ে লেগে বক্সের বাইরে জমা পড়ে কৃষ্ণার পায়ে। বাঁ-পায়ের বুলেট শটে সেই শট জালে জড়িয়ে দেন কৃষ্ণা।

গোল হজম করে রক্ষণে রানা ঘরামির পরিবর্তে অভিষেক আম্বেকরকে নিয়ে আসেন ফাওলার। ৫৯ মিনিটে বক্সের মধ্যে একটা দারুণ সুযোগ পেয়েছিলেন বলবন্ত। বাঁ-পায়ে নেওয়া শটটার ক্ষেত্রে আরেকটু তৎপরতা দেখালে ইস্টবেঙ্গল সমতায় ফিরতে পারত। মাঝমাঠে জ্যাক ম্যাঘোমা-পিলকিংটন জুটি সক্রিয়তা দেখালেও আক্রমণ দানা বাঁধছিল না কিছুতেই। ৮৩ মিনিটে পিলকিংটনের একটি জোরালো ভলি দুরন্ত দক্ষতায় রক্ষা করেন অরিন্দম। কিন্তু দু’মিনিট বাদে নারায়ণের থেকে বল ছিনিয়ে নিয়ে একক দক্ষতায় গোল করে ইস্টবেঙ্গলের ম্যাচে ফেরার আশায় জল ঢেলে দেন মনবীর। প্রতি-আক্রমণে ডানপ্রান্ত বরাবর বল ধরে বিপক্ষ পেনাল্টি বক্সে প্রবেশ করেন পঞ্জাব স্ট্রাইকার। এরপর ঠান্ডা মাথায় বাঁ-পায়ের কোনাকুনি শটে বল জালে রাখেন মনবীর।

ঐতিহাসিক ডার্বি জিতে দু’ম্যাচে ৬ পয়েন্ট নিয়ে লিগ টেবিলের শীর্ষে এটিকে-মোহনবাগান। অন্যদিকে আইএসএলের অভিষেক ম্যাচ হারলেও সবটা খারাপ নয় ইস্টবেঙ্গলের জন্য। মঙ্গলবার মুম্বই সিটি এফসি’র বিরুদ্ধে আরেকটি কঠিন ম্যাচে নামবে লাল-হলুদ।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।