স্টাফ রিপোর্টার, মালদহ: পুরাতন মালদহের ভাবুক গ্রাম পঞ্চায়েত হাতছাড়া হলো বিজেপির। জানা গিয়েছে, প্রধান সহ তিনজন বিজেপি সদস্য এবং একজন কংগ্রেস সদস্য বুধবার যোগ দিলেন তৃণমূল কংগ্রেসে। ফলে বিজেপি পরিচালিত এই গ্রাম পঞ্চায়েত ফের তৃণমূল কংগ্রেসের দখলে এল।

জানা গিয়েছে, গত পঞ্চায়েত নির্বাচনে চৌদ্দটি আসনের মধ্যে নয়টি আসন দখল করে একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে পঞ্চায়েত দখল করে বিজেপি। কিন্তু দেড় বছর কাটতে না কাটতেই ভোল বদল হয়। পঞ্চায়েত প্রধানসহ বিজেপির তিনজন এবং কংগ্রেসের একজন যোগদান করলেন তৃণমূল কংগ্রেসে।

মালদহের ভাবুক গ্রামের এই পঞ্চায়েতে চৌদ্দটির মধ্যে নয়টি বিজেপির দখলে ছিল। গত পঞ্চায়েত নির্বাচনে তৃণমূল কংগ্রেস এবং একটি আসনে কংগ্রেস জয়লাভ করে। পরিবর্তিত পরিসংখ্যান অনুযায়ী, এই মুহূর্তে তৃণমূলের সদস্য সংখ্যা আট। এবং বিজেপির সদস্য সংখ্যা ছয়।

এদিকে তৃণমূলে যোগদানের বিষয়ে ওই পঞ্চায়েত প্রধানকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে তিনি জানান, বিজেপি’তে থেকে উন্নয়নের কাজ করা যাচ্ছিল না। এই বিষয়ে তিনি আরও বলেন, দলীয় নেতৃত্বের চাপে উন্নয়নের কাজ ব্যাহত হচ্ছিল ফলে সেই কারনেই তিনি বিজেপি থেকে তৃণমূল কংগ্রেসে যোগদান করেছেন। অন্যদিকে ভয় দেখিয়ে প্রলোভন দিয়ে বিজেপি সদস্যদের দল ভাঙানো হয়েছে বলে অভিযোগ করে জানিয়েছে জেলা বিজেপি নেতৃত্বে। যদিও বিজেপির এই অভিযোগ নস্যাৎ করেছে জেলা তৃণমূল কংগ্রেসে নেতৃত্ব।

অন্যদিকে, গত কয়েকদিন আগে বিজেপির হাত ছাড়া হয় নিশিগঞ্জ গ্রাম পঞ্চায়েতটি। লোকসভা নির্বাচনের ফল প্রকাশের পর নিশিগঞ্জ ১ গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধানসহ ১১ জন তৃণমূল পঞ্চায়েত সদস্য বিজেপিতে যোগ দিলে ওই গ্রাম পঞ্চায়েত বিজেপির দখলে চলে যায়। গত কয়েকদিন আগে রাজ্যের মন্ত্রী বিনয়কৃষ্ণ বর্মন সহ স্থানীয় তৃণমূল নেতা মোসলেম মিয়াঁ, মোজাফ্ফর রহমান প্রমুখের উপস্থিতিতে গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধান নিরঞ্জন দাস সহ পঞ্চায়েত সদস্যরা ফের তৃণমূলে যোগ দেন। আর তাদের যোগদানের পরেই এই পঞ্চায়েতটি বিজেপির হাতছাড়া হয়।

উল্লেখ্য, লোকসভা নির্বাচনে রাজ্যে গেরুয়া ঝড়। এক ধাক্কায় বাংলায় লোকসভা আসন ১৯টিতে পৌঁছে যায় বিজেপির। ফলাফল প্রকাশের পর দেখা যায় বাংলার একাধিক বিধানসভা কেন্দ্রে এগিয়ে রয়েছে বিজেপি। যা কিনা যথেষ্ট চিন্তার ভাঁজ পড়ে শাসকদল তৃণমূলের কপালে। বাংলায় বিজেপির এহেন ফলাফল সামনে আসার পরেই তৃণমূল থেকে বহু বিধায়ক বিজেপির হাত ধরে। শুধু তাই নয়, তৃণমূলের হাত ছাড়া হয় বহু পঞ্চায়েত, পুরসভাও।

যদিও সময় ঘুরতেই পালটা বিজেপিকে কৌশলী চাল শাসকদল তৃণমূলের। একের পর এক হাতছাড়া হওয়া পুরসভাগুলিকে ফের নিজেদের আয়ত্তে নিয়ে আসে তৃণমূল কংগ্রেস। শুধু তাই নয়, হাতছাড়া হওয়া পঞ্চায়েতগুলিকেও ফের বিজেপির হাত থেকে ছিনিয়ে নিচ্ছে শাসকদল। ফলে ফের একবার একের পর এক পঞ্চায়েত তৃণমূলের দখলে আসছে।