ফাইল ছবি

স্টাফ রিপোর্টার, মালদহ: লকডাউনের মধ্যেই খোলা চায়ের দোকান। আর সেখানে জমায়েত সরাতে গিয়ে জনতার হাতে আক্রান্ত হল পুলিশ। ঘটনাটি ঘটেছে, মালদহের হরিশ্চন্দ্রপুর থানার বিজোট এলাকায়। এদিকে এই ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগ দুইজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। পুলিশকে লক্ষ করে ছোঁড়া হয় ইঁট। তাতে আহত হন দুই পুলিশ কর্মী। যদিও প্রাথমিক চিকিৎসার পর তাঁদের ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

জানা গিয়েছে, লক ডাউনের মধ্যেও হরিশ্চন্দ্রপুরে একাধিক এলাকায় সকাল-সন্ধ্যায় চায়ের ঠেকগুলি রমরম করে চলছে। নিয়ম না মেনে দোকানে আড্ডা, জমায়েত সবই চলছে। স্থানীয়দের অনেকে তার প্রতিবাদ করলেও ফল হচ্ছে না। ফলে স্থানীয়রাই এদিন বিষয়টি নিয়ে পুলিশের কাছে অভিযোগ জানান।

এই ঘটনার দিন কয়েক আগেও রতুয়ার ভাদো এলাকাতেও চায়ের ঠেকে জমায়েত সরাতে গিয়ে আক্রান্ত হতে হয়েছিল পুলিশকে। সেদিনের ঘটনায় এক অফিসারের মাথাও ফাটিয়ে দেওয়া হয়। আহত হন চার সিভিক ভলান্টিয়ারও। তারপর এদিনও বিকেলে চায়ের দোকানে জমায়েতের খবর পেয়ে পুলিশ পৌঁছায়। কিন্তু তাদের সরানোর চেষ্টা করতেই পুলিশকে ঘিরে মারমুখী হয়ে ওঠে বাসিন্দাদের একাংশ। পুলিশকে লক্ষ করে ইট, ঢিল ছুঁড়তে শুরু করে তারা। পুলিশকর্মী কম থাকায় বেগতিক দেখে তাঁরা ফিরে যান। পরে সেখানে বিশাল পুলিশ বাহিনী যায়।

ফের পুলিশকে লক্ষ করে ইট ছুঁড়তে শুরু করেন বাসিন্দাদের একাংশ। গুরুতর জখম না হলেও ইঁটের আঘাতে অল্পবিস্তর আহত হন কয়েকজন পুলিশকর্মী। আহতদের উদ্ধার করে স্থানীয় স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে গেলে প্রাথমিক চিকিৎসার পর তাঁদের ছেঁড়ে দেওয়া হয়। এদিকে এই ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে দুইজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। চাঁচলের এসডিপিও সজলকান্তি বিশ্বাস বলেন, “বিজোটে যারা পুলিশকে হেনস্থা করেছে তাদের কাউকে ছাড়া হবে না। নিয়ম না মানলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। দুজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকিদের খোঁজে তল্লাশি শুরু হয়েছে।”