ভাগলপুর: দুর্ঘটনার কবলে পড়ে পরিযায়ী শ্রমিকদের মৃত্যু-মিছিল কিছুতেই আটকানো যাচ্ছে না। এবারের বিহারের ভাগলপুরে দুর্ঘটনার বলি কমপক্ষে ৯ পরিযায়ী শ্রমিক। ট্রাক-বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে দুর্ঘটনা। ট্রাকে ফিরছিলেন পরিযায়ী শ্রমিকরা। উল্টোদিক থেকে দ্রুত বেগে আসা একটি বাস মুখোমুখি ধাক্কা মারে ট্রাকে। দুর্ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় ৯ শ্রমিকের। আহতও হয়েছেন বেশ কয়েকজন।

বিহারের ভাগলপুরের নওগাছিয়ায় একটি ট্রাকে ফিরছেলন পরিযায়ী শ্রমিকের একটি দল। লকডাউনের জেরে আটকেছিলেন তাঁরা। শেষমেশ ট্রাকচালকের সঙ্গে কথা বলে বাড়ি ফেরার জন্য গাড়িতে উঠে পড়েন তাঁরা।

কিছুদূর যাওয়ার পরেই উল্টোদিক থেকে দ্রত বেগে একটি বাস এসে ধাক্কা মারে ট্রাকে। নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে উল্টে যায় ট্রাকটি। দুর্ঘটনার জেরে কমপক্ষে ৯ পরিযায়ী শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে।

লকডাউনের জেরে একাধিক রাজ্যে লক্ষাধিক পরিযায়ী শ্রমিক আটকে রয়েছেন। রুজি-রোজগারের সংস্থান হারিয়ে তাঁরা এখন ঘোর বিপাকে পড়েছেন।

গাড়ি চলাচল বন্ধ থাকায় অনেকেই রেল ও সড়কপথ ধরে হাঁটতে শুরু করেছেন। এভাবে হাঁটতে গিয়ে ইতিমধ্যেই দেশের একাধিক রাজ্যে পথ দুর্ঘটনায় প্রাণ হারিয়েছেন বহু পরিযায়ী শ্রমিক। গত কয়েকদিনে বিভিন্ন রাজ্য থেকে পরিযায়ী শ্রমিকদের দুর্ঘটনার কবলে পড়ার খবর সামনে এসেছে।

সোমবার রাতেই উত্তরপ্রদেশের ঝাঁসি-মিরাজপুর হাইওয়েতে দুর্ঘটনায় মৃত্যু হয়েছে ৩ পরিযায়ী মহিলা শ্রমিকের। আহত কমপক্ষে ১২ জন। ১৭ জন শ্রমিকের ওই দল দিল্লি থেকে পূর্ব উত্তরপ্রদেশে ফেরার জন্য রওনা দেয়। মাঝ রাস্তা থেকে একটি ট্রাকে চাপেন তাঁরা।

নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে সেই ট্রাক উলটে মৃত্যু হয়েছে ৩ পরিযায়ী মহিলা শ্রমিকের। এর আগে রবিবারও মধ্যপ্রদেশের বরওয়ানিতে ট্রাকের চাকায় পিষ্ট হয়ে মৃত্যু হয় স্বামী-স্ত্রী সহ ৪ পরিযায়ী শ্রমিকের। তারও আগে শনিবার মধ্যপ্রদেশেই সাগর জেলায় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ট্রাক উলটে মৃত্যু হয় ৫ পরিযায়ী শ্রমিকের।

পচামড়াজাত পণ্যের ফ্যাশনের দুনিয়ায় উজ্জ্বল তাঁর নাম, মুখোমুখি দশভূজা তাসলিমা মিজি।