নয়াদিল্লি: সাত সকালে উত্তর দিল্লির আনাজ মান্ডির একটি কারখানায় বিধ্বংসী আগুন লাগার ঘটনায় আতঙ্ক ছড়াল এলাকা জুড়ে। এই অগ্নিকাণ্ডে এখনও পর্যন্ত দমবন্ধ হয়ে ৩৬ জনের মৃত্যু হয়েছে৷ এঁরা কারখানার শ্রমিক বলে জানা যাচ্ছে৷ অনেকেই জখম হয়েছেন৷ তাঁদের উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। দমকলের ত্রিশটি ইঞ্জিন কাজ করছে। ঘটনাস্থলে রয়েছে দিল্লি পুলিশ এবং বিশাল দমকল বাহিনী।

দমকল সূত্রে জানা গিয়েছে, রবিবার ভোরবেলার দিকে ওই কারখানাটিতে আগুন লাগে। তবে ঠিক কি ভাবে আগুন লাগল তা এখনও স্পষ্ট নয় পুলিশের কাছে।তবে আগুনের তীব্রতা এতটাই বেশি ছিল যে, দ্রুত আগুন পাশের দুটি বহু তলেও ছড়িয়ে পড়ে। গোটা ঘটনায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে স্থানীয় বাসিন্দাদের মধ্যে।

ডেপুটি ফায়ার চিফ অফিসার সুনীল চৌধুরী জানিয়েছেন, ছয়শো স্কয়ার ফিট প্লটের ওই কারখানাতে রবিবার সকাল বেলা আগুন লাগে। তিনি আরও জানান, আগুনের তীব্রতা এতটাই বেশি ছিল যে, কালো ধোঁয়ায় ঢেকে যায় চারিপাশ।

জানা গিয়েছে, কারখানাটিতে মূলত স্কুল ব্যাগ, বোতল এবং অন্যান্য সামগ্রী তৈরি হয়। ঘটনার সময় কারখানার ভিতরে কুড়ি-পঁচিশ জন শ্রমিক ছিল। তাঁরা সকলেই ঘুমন্ত অবস্থায় ছিলেন। ফলে আগুন লাগার বিষয়টি বুঝতে পারেননি তাঁরা কেউ। এই ঘটনায় সকাল থেকেই যান চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে উত্তর দিল্লির আনাজ মান্ডির ঝাঁসি রোডে। সমস্ত গাড়িকে অন্য রুট দিয়ে ঘুরিয়ে দেওয়া হচ্ছে বলে জানা গিয়েছে।

এই মুহূর্তে কালো ধোঁয়ায় ঢেকে গিয়েছে চারপাশ। মনে করা হচ্ছে, মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে৷

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ