স্টাফ রিপোর্টার, জলপাইগুড়ি: রাতের অন্ধকারে কেরোসিন তেল ঢেলে গোটা পরিবারকে জ্বালিয়ে দেওয়ার চেষ্টায়, চাঞ্চল্য ছড়াল এলাকায়। মর্মান্তিক এই ঘটনাটি ঘটেছে, জলপাইগুড়ি জেলার বাহাদুর গ্রাম পঞ্চায়েতের ফৌজদারপাড়া এলাকায়। ঘটনাটিকে ঘিরে ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে গ্রামবাসীদের মধ্যে। তবে রাতের অন্ধকারে এসে কে বা কারা এই কাজ করল তা এখনও জানা যায়নি। পুরো বিষয়টি খতিয়ে দেখে ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে কোতোয়ালি থানার পুলিশ।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, শনিবার গভীর রাতে ওই বাড়ির মালিকের ছেলে প্রথমে কেরোসিনের গন্ধ পাই। ছেলের ডাকেই বাড়ির অন্য সদস্যরা উঠে আসে। এবং বাইরে এসে তাঁরা দেখতে পান বাড়ির উঠোনের পাশে রাখা ধানের স্তুপে আগুন জ্বলছে। এরপরই বাড়ির মালিক বুঝতে পারেন কেউ ইচ্ছাকৃত ভাবে শয়তানি করে তাঁদের ঘুমের মধ্যেই মারার চেষ্টা করছিল।

তবে মাঝরাতে তাঁর তেরো বছরের ছেলে শৌচকর্মের জন্য বাথরুমে যাওয়ায় এই যাত্রায় পরিবারের সকলে প্রানে বেঁচে গিয়েছেন বলে জানান বাড়ির মালিক জিতেন্দ্র রায়। জিতেন্দ্র রায় এদিন দাবী করে জানিয়েছেন, ”ছেলে ঘটনাটি দেখে ফেলায় বাড়ির সকলেই রক্ষা পেয়েছি আমরা। তা না হলে বাড়ির সকলকে আগুনে পুড়ে মরতে হত। বাড়ির চারদিকে কেরোসিন তেল ঢেলে আগুন লাগিয়ে আমাদের সকলকে পুড়িয়ে মারার চেষ্টা করা হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে জলপাইগুড়ি কোতোয়ালি থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছি।”

এই ব্যাপারে কোতোয়ালি থানার আই সি বিশ্বাশ্রয় সরকার জানান, রাতের অন্ধকারে কেউ ওনাদের পুড়িয়ে মারার চেষ্টা করছিল। ওই পরিবারের তরফে থানায় একটি অভিযোগ জমা পড়েছে। পুরো বিষয়টি খতিয়ে দেখে ঘটনার তদন্তে শুরু করেছে পুলিশ।

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও