স্টাফ রিপোর্টার, বনগাঁ: উত্তর ২৪ পরগনার বনগাঁ মহকুমার গোপাল নগরে জনবহুল এলাকায় গড়ে উঠছে রেষ্টুরেন্ট কাম বার। এই পানশালা গড়ে ওঠায় এলাকার পরিবেশ নষ্ট হচ্ছে বলে অভিযোগ স্থানীয় বাসিন্দাদের। তারই প্রতিবাদে স্থানীয় মহিলারা রাস্তার পাশে চারদিন ব্যাপী অবস্থান বিক্ষোভ বসেছেন। তাঁদের দাবি, ওই পানশালা অবিলম্বে তুলে দিতে হবে।

স্থানীয়দের অভিযোগ, বারবার প্রশাসনকে জানিয়েও বন্ধ করা যাচ্ছে না ওই মদের দোকান। তাই বাধ্য হয়েই মদের দোকান বন্ধের দাবিতে ধর্নায় বসেছেন তাঁরা। ফলে বাধ্য হয়ে বনগাঁ মহকুমার গোপালনগর থানার বর্দ্ধনবেড়িয়া এলাকায় রাস্তার পাশে ফ্লেক্স টাঙিয়ে ধর্নায় বসে পরেছেন স্থানীয় মহিলারা।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, গোপালনগর থানার বর্দ্ধনবেড়িয়া এলাকার বনগাঁ চাকদা রোডের জনবহুল এলাকায় রাস্তার পাশে গড়ে উঠেছে একটি রেস্টুরেন্ট কাম বার। দীর্ঘ একবছর ধরে বিভিন্ন ভাবে প্রতিবাদ করলেও, সংশ্লিষ্ট ওই মদের দোকানটি বন্ধ করতে প্রশাসন উদাসীন। স্থানীয়দের অভিযোগ, এই বার-কাম রেস্টুরেন্ট গড়ে ওঠায় এলাকার সুস্থ পরিবেশ নষ্ট হচ্ছে। ওই এলাকায় মদ খেয়ে প্রায় প্রতিদিনই চলছে বিভিন্ন ধরনের অসামাজিক কার্যকলাপ। সন্ধ্যার পরে বাইরের থেকে মহিলাদের নিয়ে আসা হচ্ছে ওই বারে, ফলে বারে নোংরামো হচ্ছে বলেও অভিযোগ করেন তারা। প্রশানের পক্ষ থেকে এই বিষয়ে কোনও রকম সহযোগীতা না পেয়ে অবশেষে সোমবার থেকে মদের দোকানের পাশে ফ্লেক্স টাঙিয়ে ধর্নায় বসেছেন স্থানীয় মহিলারা। এদিকে ঘটনার চারদিন কেটে গেলেও এখনও পর্যন্ত প্রশাসনের পক্ষ থেকে কোন রকম সদুত্তর মেলেনি। যত দিন না দোকান বন্ধ হচ্ছে, ততদিন ক্ষুব্ধ মহিলারা রাস্তার পাশে এভাবেই ধর্না চালিয়ে যাবেন বলেও জানিয়েছেন।

এই বিষয়ে বার মালিক বিভাস সাধুখা বলেন, “আমি সরকারি অনুমোদন নিয়ে ওখানে দোকান করেছি। কিছু লোক টাকার জন্য বিভিন্ন ভাবে ঝামেলা করছে।” এই বিষয়ে বনগাঁ পঞ্চায়ের সমিতির সভাপতি প্রদীপ বিশ্বাস বলেন, “আমরা ব্যাপারটা শুনেছি। প্রশাসনের সঙ্গে কথা বলে আন্দোলনকারীদের সঙ্গে কথা বলব। আশা করি দ্রুত সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে।”