স্টাফ রিপোর্টার, বালুরঘাট: ফেসবুকে বন্ধুত্বে সম্মতি জানিয়ে প্রথম আলাপ। তারপরেই প্রোফাইল থেকে মহিলার ফটো চুরি করে ফেক অ্যাকাউন্ট খোলার অভিযোগ। ফেক ওই অ্যাকাউন্টের মাধ্যমে ভিন রাজ্যে বসে সোশ্যাল মিডিয়ায় অশ্লীল বার্তা ছড়িয়ে দেওয়ার ঘটনায় একজনকে গ্রেফতার করল পুলিশ। অর্ণব দেশমুখ নামের ভিন রাজ্যের ওই যুবককে পুলিশ সোমবার বালুরঘাট আদালতে হাজির করে।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, বালুরঘাট থানার পতিরাম এলাকার মৌসুমী সামন্ত নামের এক মহিলাকে ফেসবুকে বন্ধুত্বের অনুরোধ পাঠান অর্ণব দেশমুখ নামের ওই কলেজ ছাত্র। মহিলা সেই বন্ধুত্বে সম্মতি জানালে দুইজনের মধ্যে মাঝে মধ্যেই শুভেচ্ছা বিনিময় ও বার্তালাপ শুরু হয়। অভিযোগ, বন্ধুত্বের সুযোগ নিয়ে সে মহিলার প্রোফাইল থেকে ছবি চুরি করে। এবং তা দিয়ে একাধিক ফেক একাউন্ট তৈরি করে সে। শুধু তাই নয়, মহিলার ছবিযুক্ত ওই ফেক অ্যাকাউন্ট গুলির মাধ্যমে বিভিন্ন মানুষের সঙ্গে অশ্লীল কথাবার্তা শুরু করে ধৃত যুবক। গত অগস্ট মাসে বিষয়টি নজরে আসতেই পুলিশের সাইবার সেলে অভিযোগ জানান মৌসুমী সামন্ত।

পুলিশ তদন্তে নেমে ফেক ওই অ্যাকাউন্ট গুলির ইউআরএল-এর সূত্র ধরে জানতে পারেন যে, গুজরাটের সুরাট থেকে তা অপারেট করা হচ্ছে। গত সপ্তাহে সাইবার পিএস-এর আইসি’র নেতৃত্বে পুলিশের একটি টিম সুরাটে গিয়ে অর্ণব দেশমুখ নামের ওই যুবককে গ্রেফতার করে এনেছে। সোমবার বালুরঘাট আদালতে হাজির করানো হলে তার জামিনের আবেদন খারিজ করে তাকে দিনের পুলিশি হেফাজতে রাখার নির্দেশ দিয়েছেন বিচারক।

এই বিষয়ে জেলা পুলিশ সুপার দেবর্ষি দত্ত জানিয়েছেন যে, অভিযোগের ভিত্তিতে প্রথমে এফআইআর দায়ের করে তদন্ত শুরু করা হয়েছিল। তদন্তে অ্যাকাউন্টের ইউআরএল এর মাধ্যমে খোঁজ নিতে গিয়ে দেখা যায়, সুরাট থেকে অর্ণব দেশমুখ নামের ওই যুবক তা অপারেট করছিল। তারপরেই জেলা থেকে পুলিশ সেখানে পৌঁছে তাকে গ্রেফতার করে এনেছে।