তিমিরকান্তি পতি, বাঁকুড়া: সম্পূর্ণ ‘রাজনৈতিক প্রতিহিংসা’র জেরে বিজেপির জেলা কার্যালয়ের পূনঃনির্মানের কাজ আটকে দেওয়ার অভিযোগ উঠল তৃণমূল পরিচালিত বাঁকুড়া পৌরসভার বিরুদ্ধে। বিজেপির অভিযোগ, শহরের নতুনগঞ্জে তাদের এই কার্যালয়টি বহু পুরনো। ভগ্নপ্রায় ঐ কার্যালয় নতুনভাবে তৈরীর কাজ শুরু হয়েছিল। পৌরসভা ক্ষমতার জোরে সেই কাজ বন্ধ করে দিয়েছে বলে তাদের অভিযোগ।

বিজেপির বাঁকুড়া জেলার সাধারণ সম্পাদক সৌগত পাত্র সরাসরি শাসক দল পরিচালিত বাঁকুড়া পৌরসভার বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলে বলেন, পুরনো ওই পার্টি অফিসের কিছুটা অংশ পূনঃনির্মানের কাজ শুরু হয়েছিল। তৃণমূল সম্পূর্ণভাবে ‘রাজনৈতিক প্রতিহিংসা’ চরিতার্থ করতে এই কাজ আটকে দিয়েছে। একই সঙ্গে পৌর আইন লঙ্ঘন শাসক দল শহরের পাড়ায় পাড়ায় সম্পূর্ণ বেআইনিভাবে, বৈধ কাগজ পত্র ছাড়াই তাদের দলীয় কার্যালয় তৈরী করেছে দাবী করে তিনি আরও বলেন, বিজেপির ক্রমবর্ধমান সংগঠন দেখে তৃণমূল ‘নোংরা রাজনীতি’ করছে। হাজারো বাধা সত্ত্বেও দলীয় কার্যালয় তারা তৈরী করবেন। একই সঙ্গে তৃণমূল পরিচালিত পৌর বোর্ডের ‘হাজারো দূর্ণীতি’র বিরুদ্ধে তারা দলীয়ভাবে বৃহত্তর আন্দোলনে নামবেন বলে তিনি জানান।

বিজেপির ওই বিতর্কিত কার্যালয় তৈরীর কাজে যুক্ত ঠিকা শ্রমিক শেষ মান আলি বলেন, চলতি মাসের দু’তারিখ থেকে তারা এই কাজ করছিলেন। এদিন পৌরসভার দায়িত্বপ্রাপ্ত ইঞ্জিনিয়ার এসে কাজ বন্ধ রাখার নির্দেশ দেওয়ায় তারা আর কাজ করেননি বলে তিনি জানান।

বিজেপির তোলা ‘রাজনৈতিক প্রতিহিংসা’র অভিযোগ মানতে নারাজ বাঁকুড়া পৌরসভার চেয়ারম্যান মহাপ্রসাদ সেনগুপ্ত। তিনি বলেন, ওরা এখন সব কিছুতেই ‘প্রতিহিংসার রাজনীতি দেখছে’। ৩ নম্বর ওয়ার্ডের নতুনগঞ্জে পৌরসভার অনুমোদন ছাড়াই বিজেপির পার্টি অফিস তৈরী হচ্ছে অভিযোগ পেয়ে সংশ্লিষ্ট দফতরের আধিকারিককে সেখানে পাঠাই। বৈধ কাগজপত্র না থাকায় ওই নির্মান কাজ বন্ধ রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। তিনি এদিন নাম না করে জেলা বিজেপি নেতৃত্বকে কটাক্ষ করে আরও বলেন, যে সর্বভারতীয় রাজনৈতিক দল ‘পৌরসভা দখলে’র স্বপ্ন দেখছে তারাই আবার পৌরসভার অনুমতি ছাড়াই নির্মান কাজ করছে। এরা ক্ষমতায় এলে কি হবে শহরবাসীকে ভেবে দেখতে অনুরোধ করেন তিনি। বিজেপির তোলা শহরের তৃণমূলের কার্যালয় গুলি অবৈধভাবে তৈরী হয়েছে এই অভিযোগ প্রসঙ্গে চেয়ারম্যান মহাপ্রসাদ সেনগুপ্ত বলেন, কোথাও এই ধরণের কাজ হয়নি। এরপরেও কোনও জায়গায় তাদের না জানিয়ে এই ধরণের কাজ হলে দলীয়ভাবে তারা তদন্ত করে দেখবেন বলে তিনি জানান।