মুম্বই: পাঞ্জাব অ্যান্ড মহারাষ্ট্র কো-অপারেটিভ (পিএমসি) ব্যাংকের গ্রাহকেরা মঙ্গলবার রিজার্ভ ব্যাংকের সামনে বিক্ষোভ দেখালেন৷ বিক্ষোভকারীরা কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সামনে তারা দাবি জানালেন, কেলেঙ্কারিতে জর্জরিত ওই ব্যাংকে তাদের আমানতের টাকার নিরাপত্তা ৷ এজন্য তাঁরা দাবি করেছে,পাঞ্জাব অ্যান্ড মহারাষ্ট্র কো-অপারেটিভ ব্যাংকের পুনরুজ্জীবনের যাতে তারা সেখান থেকে টাকা তুলতে পারে৷

প্রসঙ্গত,এই পাঞ্জাব অ্যান্ড মহারাষ্ট্র কো-অপারেটিভ ব্যাংকের ৪৩৫৫ কোটি টাকার কেলেঙ্কারির কথা জানাজানির পর টাকা তোলার ক্ষেত্র সীমা টানা হয় এবং ১০০০টাকার বেশি তোলায় নিষেধাঙ্গা জারি হয়৷ পরে অবশ্য টাকা তোলার সীমা বাড়িয়ে ৪০০০টাকা করা হয় ৷

এদিন এই ব্যাংকের ২০০বেশি গ্রাহক রিজার্ভ ব্যাংকের বান্দ্রা কুর্লা কমপ্লেক্স-এর সামনে তাদের দাবি দাওয়া নিয়ে জমায়েত হন এবং পরে তাদের মধ্যে থেকে পাঁচজন প্রতিনিধি রিজার্ভ ব্যাংকের অফিসাররদের সঙ্গে দেখা করে তাদের ক্ষোভ ও দাবি দাওয়ার কথা জানান৷

আমানতকারীরা প্রশ্ন তুলেছেন যেখানে প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী (মনমোহন সিং) এই বিষয়ে কথা বলেছেন সেখানে বর্তমান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী কেন কোনও কথা বলছেন না৷ প্রায় ১৬০০০ অ্যাকাউন্টহোল্ডার এই ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্ত অথচ সরকার বিষয়ে বোবা হয়ে রয়েছে৷ এই পরিস্থিতিতে তাদের কাছে উগ্রপন্থী হওয়া ছাড়া আর কোনও বিকল্প পথ নেই৷
এক অ্যাকাউন্টহোল্ডার মনে করিয়ে দেন, এই ঘটনার জেরে ছয় জম মারা গিয়েছেন এবং জানা নেই আর কত জন হতাশায় ভুগছেন৷ তাঁর প্রশ্ন তারা সব সময় মোদীজির মন কি বাত শোনেন কিন্তু তাদের কথা কে শুনছে ?

এই ব্যাংকটির সংকটের কারণ হল প্রচুর ঋণ দেওয়া হয়েছিল হাউসিং ডেভলপমেন্ট ইনফ্রাস্ট্রাকচার লিমিডেটের (এইচডিআইএল) যা নিয়ন্ত্রকের চোখ এড়িয়ে অনুৎপাদক সম্পদে পরিণত হয়৷ এইচডিআইএল-র প্রোমোটার সহ পাঁচজনকে এই মামলায় গ্রেফতার করা হয়েছে৷

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও