নয়াদিল্লি: আগামিকাল ২৩মে লোকসভার পাশপাশি চার বিধানসভার ভোট গণনা হবে৷ এপ্রিল -মে মাসে লোকসভার পাশাপাশি চার রাজ্য- ওডিশা, অন্ধ্র, অরুণাচল, সিকিম বিধানসভায় নির্বাচন হয়েছে ৷

এবার অন্ধ্র প্রদেশ বিধানসভার নির্বাচন খুব গুরুত্বপূর্ণ কারণ ২০১৪ সালে জিতলেও এবার টিডিপি আদৌ ক্ষমতা ধরে রাখতে পারবে কিনা প্রশ্ন উঠেছে ৷ প্রধান বিরোধী ওয়াইএস আর কংগ্রেস জয়ের সম্ভাবনা প্রবল তাদের রাজনৈতিক স্থায়িত্বের জন্য৷ আর কংগ্রেসের পুনরুত্থান হয় কি না সেটাই দেখার৷ ২০১৪ সালে বিজেপির সঙ্গে জোট করে টিডিপি ক্ষমতা এসেছিল এবার অবশ্য এখন বিজেপির সঙ্গে নেই টিডিপি ৷

 

ওডিশায় নবীন পট্টনায়েকের নেতৃত্বে বিজেডি চতুর্থবারের জন্য ক্ষমতায় আসবে কি না, সেটা নিয়েই জল্পনা চলছে তবে সেখানে বিজেপি এবার ভাল ফল করতে পারে৷ ২০১৪ সালে বিজেডি ওই বিধানসভার ১৪৭টি আসনের মধ্যে ১১৭টি আসন পেয়েছিল৷ গেরুয়া শিবিরের নেতারা দাবি করেছে, তারা রাজ্যে সরকার গড়বে কারণ ৭০ বেশি আসন পাবে৷ অন্যদিকে প্রধান বিরোধী দল কংগ্রেস দাবি করেছে ২০১৪ সালের তুলনায় এবার অনেক ভাল ফল করবে৷

সিকিমে রয়েছে একটি লোকসভা এবং ৩২টি বিধানসভা৷ বর্তমানে উত্তর পূর্বের এই রাজ্যটি আপাতত সিকিম ডেমোক্রেটিক ফ্রন্টের অধীনে৷ ৬.১ লক্ষ মানুষের বাস করা পাহাড়ের কোলে থাকা ছোট্ট রাজ্যটিতে মুখ্যমন্ত্রী পওয়ন কুমার চামলি এবং ন্যাশনাল কংগ্রেসের লেনধুপ দোরজি বহু বার এই পরীক্ষায় উতরেছেন৷ এবারের ভোটে অন্যতম আকর্ষণ অবশ্য ফুটবলার বাইচুং ভুটিয়ার নতুন তৈরি হামারা সিকিম পার্টি ৷

অরুণাচল প্রদেশে এবার ভোটে লড়ছে বিজেপি, কংগ্রেস, এনপিপি, পিপিএ এবং জনতা দল (সেকুলার)৷ এবার ভোট দিয়েছেন, ৭,৯৪,১৬২ জন মোট ভোটার তার মধ্যে ৪,০১,৬০১ মহিলা রয়েছেন৷ পেমা খান্ডু নেতৃত্বে বিজেপির ৪৮জন বিধায়ক রয়েছে ৬০সদস্যের বিধানসভায়৷ কংগ্রেস এবং এনপিপি পাঁচজন করে বিধায়ক রয়েছে ৷ দু’জন বিধায়ক নির্দল৷