১. বারুইপুর পূর্ব

বারুইপুর পূর্ব বিধানসভা কেন্দ্রে গত বিধানসভা নির্বাচনে তৃণমূলের নির্মল চন্দ্র মন্ডল নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী সিপিএমের সুজয় মিস্ত্রিকে ২০ হাজার ৩৬২ ভোটে হারিয়ে জয়ী হয়েছিলেন৷ গতবার এই কেন্দ্রে তৃণমূল প্রার্থীর প্রাপ্ত ভোট ছিল ৯২,৩১৩৷ অন্যদিকে, সিপিএমের ঝুলিতে গিয়েছিল ৭১,৯৫১টি ভোট৷ এই কেন্দ্রে তৃতীয় স্থানে ছিলেন বিজেপি প্রার্থী৷ গেরুয়া দলের প্রাপ্ত ভোট ছিল ১২,৭৩৮৷ এসইউসিআই এই কেন্দ্রে গতবার চতুর্থ স্থানে ছিল৷

২. বারুইপুর পশ্চিম

দক্ষিণ ২৪ পরগনার অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ বিধানসভা কেন্দ্র এটি৷ এই কেন্দ্রেরই বিধায়ক বিমান বন্দ্যোপাধ্যায় রাজ্য বিধানসভার অধ্যক্ষ৷ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আস্থাভাজন বিমানবাবু পরপর দুবার এই কেন্দ্র থেকে জয়ী হন৷ ২০১৬ সালের বিধানসভা নির্বাচনে তৃণমূল প্রার্থী বিমান বন্দ্যোপাধ্যায় তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী সিপিএমের সফিউদ্দিন খানকে ৩৬ হাজার ৫৩২ ভোটে হারিয়েছিলেন৷ গতবার বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রাপ্ত ভোট ছিল ৯৯, ৯৪৫৷ অন্যদিকে সিপিএম প্রার্থী পেয়েছিলেন ৬৩,৪১৩টি ভোট৷ গতবার বারুইপুর পশ্চিম কেন্দ্রে বিজেপি পেয়েছিল ১৩ হাজার ৮১২টি ভোট৷

৩. ক্যানিং পূর্ব

দক্ষিণ ২৪ পরগনার এই কেন্দ্রটির বিধায়ক জেলা যুব তৃণমূল সভাপতি শওকাত মোল্লা৷ ২০১৬ সালের বিধানসভা নির্বাচনে এই কেন্দ্র থেকে তৃণমূলের শওকাত মোল্লা পেয়েছিলেন ১ লক্ষ ১৫ হাজার ২৬৪টি ভোট৷ নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী সিপিএমের আজিজুর রহমানকে ৫৫ হাজার ৩৪ ভোটের ব্যবধানে হারিয়ে দিয়েছিল শওকাত৷ গত বিধানসভা নির্বাচনে ক্যানিং পূর্ব কেন্দ্রে সিপিএম পেয়েছিল ৬০,২৩০টি ভোট৷ তবে এবার এই কেন্দ্রে খেলা ঘোরাতে পারে আব্বাস সিদ্দিকীর দল৷ এই তল্লাটে দিন যত এগোচ্ছে আব্বাস অনুগামীদের সংখ্যা ততই বাড়ছে৷

৪. ক্যানিং পশ্চিম

২০১৬ সালের বিধানসভা ভোটে ক্যানিং পশ্তিম বিধানসভা কেন্দ্রে তৃণমূলের শ্যামল মণ্ডল জয়ী হয়েছিলেন৷ তাঁর প্রাপ্ত ভোট ছিল ৯৩,৪৯৮৷ নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী কংগ্রেসের অর্ণব রায়কে ১৮ হাজার ৭২৬ ভোটে হারিয়েছিলেন তিনি৷ কংগ্রেসের ঝুলিতে গত নির্বাচনে গিয়েছিল ৭৪ হাজার ৭৭২টি ভোট৷ অন্যদিকে গত বিধানসভা ভোটে এই কেন্দ্রে তৃতীয় স্থানে ছিল বিজেপি৷

৫.মগরাহাট পূর্ব

জেলার এই কেন্দ্রেও দাপট রয়েছে তৃণমূলের৷ গত বিধানসভা ভোটে এই কেন্দ্র থেকে জিতেছিলেন তৃণমূলেন নমিতা সাহা৷ তাঁর প্রাপ্ত ভোট ছিল ৮৯,৪৮৬৷ নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী সিপিএমের ৯ হাজার ৫৬০ ভোটে হারিয়ে ছিলেন তিনি৷ গত নির্বাচনে এই কেন্দ্রে বামেদের প্রাপ্ত ভোট ছিল ৭৯,৯২৬৷ ২০১৬ সালের নির্বাচনে মগরাহাট পূর্ব কেন্দ্রে তৃতীয় স্থানে ছিল বিজেপি৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।