স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: অসমে বাঙালি হত্যার প্রতিবাদ৷ এবার পথে নেমে প্রতিবাদে ‘আমরা বাঙালি’ সংগঠন৷ অসমে বাঙালিদের আদি বাস৷ তবুও কেন সেই রাজ্যে বারংবার আক্রমের শিকার হতে হচ্ছে বাঙালিদের৷ অসম ভবনের সামনে প্রতিবাদ সভায় সেই প্রশ্নই তোলা হল সংগঠনের তরফে৷ ঘটনার এনআইএ তদন্তের দাবি জানানো হয় ‘আমরা বাঙালি’র পক্ষ থেকে৷

শনিবার দুপুর একটা নাগাদ অসমে বাঙালি হত্যার প্রতিবাদে মিছিল বের করে ‘আমরা বাঙালি’র সদস্যরা৷ অ্যাকাডেমি সামনে থেকে ধিক্কার মিছিল শেষ হয় অসম ভবনের সামনে৷ জ্বালানো হয় মশাল৷ স্লোগান ওঠে অসমের মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সোনোওয়ালের বিরুদ্ধে৷ উত্তর পূর্বের চার রাজ্যে বাঙালী হত্যার ঘটনার প্রতিবাদ জানানো হয়৷

অসমের তিন সুকুয়ায় পাঁচ বাঙালিকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে গিয়ে গুলি করে খুন করে দুষ্কৃতীরা৷ প্রথমে অভিযোগের তির ছিল আলফা জঙ্গিদের দিকে৷ পরে বিবৃতি দিয়ে তারা এই হত্যার ঘটনায় জড়িত থাকার কথা অস্বীকার করে৷ তাহলে কে এই নারকীয় হত্যালীলা চালালো? সে সম্পর্কে এখনও ধোঁয়াশা অব্যাহত৷ গোটা ঘটনার এনআইএ তদন্ত দাবি করা হয় ‘আমরা বাঙালি’র পক্ষ থেকে৷

আরও পড়ুন: ওবাদকেই বিপ্লবের পথ মনে করে কংগ্রেস : অমিত শাহ

সংগঠনের কেন্দ্রীয় সভাপতি বলেন, ‘‘সিবিআইয়ের অন্তর্দ্বন্দ্বের ফলে তাদের প্রতি আর কোনও আস্থা রাখা সম্ভব নয়৷ তাই ‘ন্যাশনাল ইনভেস্টিগেশন এজেন্সি’কে দিয়ে পুরো ঘটনার পূর্ণাঙ্গ তদন্ত করা হোক এবং এ বিষয়ে বিভাগীয় তদন্তের প্রয়োজনীয়তা আছে বলেও আমরা মনে করি।’’

তিনি জানান, স্বাধীনতা আন্দোলনের ক্ষেত্রে বাঙালির স্বতঃপ্রণোদিত আন্দোলনই এনে দিয়েছিল ভারতের স্বাধীনতা। অন্যান্য রাজ্যে এনআরসি নিয়ে তৎপর নয় কেন্দ্রীয় সরকার৷ কিন্তু বাঙালি থাকলেই সেই রাজ্যে টার্গেট করা হচ্ছে তাদের৷ কেন্দ্রীয় সরকারের তীব্র সমালোচনা করেন ‘আমরা বাঙালি’র কেন্দ্রীয় সভাপতি।

অসমের ঘটনায় সমালোচনার ঝড় বয়ে যায় গোটা দেশে৷ বিজেপি শাসিত রাজ্যে এই ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী৷ নারকীয় এই হত্যালীলা কেন্দ্রের এনআরসি’র পরিনাম বলে অভিযোগ করেন তৃণমূল নেত্রী৷ দায় চাপান কেন্দ্র ও রাজ্যের বিজেপি সরকারের উপরে৷ নিহতদের পরিবাররে সমবেদনা জানাতে তিনসুকিয়ার ধলায় যান তৃণমূলের চার সদস্যের প্রতিনিধি দল৷ এরপরও ফের প্রতিবাদে মুখর হচ্ছে বিভিন্ন সংগঠন৷ বাংলার মানুষ তিনসুকিয়ায় পাঁচ বাঙালির হত্যাকারীদের শাস্তির দাবিতে যে সরব, নিরবিচ্ছিন্ন এই প্রতিবাদই তা বলে দিচ্ছে৷