গুয়াহাটি : বড়সড় ঘোষণা রাজ্য সরকারের। কোনও করোনা আক্রান্ত ব্যক্তি যদি হোম আইসোলেশনে চিকিৎসায় থাকেন, তবে তাঁকে সব রকম ভাবে সাহায্য করবে রাজ্য সরকার। অসম সরকার জানিয়েছে হোম আইসোলেশনে থাকা করোনা আক্রান্ত ব্যক্তিকে বিনামূল্যে দেওয়া হবে করোনার ওষুধ ও পালস অক্সিমিটার।

করোনা আক্রান্ত রোগির সংখ্যা ক্রমশ বাড়তে থাকায়, এই সিদ্ধান্ত অসম সরকারের। অসমের স্বাস্থ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্ব শর্মা জানিয়েছেন যেসব করোনা রোগি বাড়িতে থেকে চিকিৎসা করাতে চান, তাদের সবরকম সাহায্য করা হবে। সেক্ষেত্রে বিনামূল্য তাঁদের করোনার প্রথম পর্যায়ের যাবতীয় ওষুধ ও পালস অক্সিমিটার দেওয়া হবে।

টেলি মেডিসিন পরিষেবা চালু করে এই ওষুধ সরবরাহ করা হবে। রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে ১০৪ নম্বর ডায়াল করে নিজের পরিস্থিতি জানিয়ে এই ওষুধ ও পালস অক্সিমিটার পাওয়ার জন্য নাম নথিভুক্ত করতে হবে।

আপাতত এই সুবিধা গুয়াহাটির জন্য বরাদ্দ হলেও, আগামী দিনে তা রাজ্যের অন্যান্য এলাকাতেও দেওয়া হবে। স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন যে সব স্বাস্থ্যকর্মীরা করোনার যুদ্ধে সামনের সারিতে থেকে লড়ছেন, তাঁদের সম্মানিত করবে রাজ্য সরকার। এজন্য একটি বড় অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হবে।

যে সব স্বাস্থ্যকর্মী করোনা থেকে সুস্থ হয়ে উঠে প্লাজমা দান করেছেন, তাদের সংবর্ধিত করবে রাজ্য সরকার। ১০ই অগাষ্ট এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। এদিকে, অসমে নতুন করে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ২.২১৮ জন। গত ২৪ ঘন্টায় মৃত্যু হয়েছে ৮জনের। এই নিয়ে মৃতের সংখ্যা দাঁড়াল ১৪০। অসমে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৫৭,৭১৪। গত ২৪ ঘন্টায় সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১৭৮২ জন।

এদিকে, দেশে মাত্র একদিনে নতুন করে ৫৬,২৮২ জনের সংক্রমণ ধরা পড়েছে। শনি থেকে রবি এই চব্বিশ ঘন্টায় ৯০৪ জন মারা গিয়েছে। দেশে বর্তমানে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৯,৬৪, ৫৬৭। সক্রিয় আক্রান্ত রয়েছে ৫,৯৫,৫০১জন এবং সম্পূর্ন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গিয়েছেন ১৩,২৮,৩৩৭ জন।

তবে এতকিছুর মধ্যে দেশে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৪০,৬৯৯। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের এক উচ্চপদস্থ আধিকারিক জানিয়েছেন, যেভাবে গোটা দেশে লাফিয়ে, লাফিয়ে সংক্রমণের হার বাড়ছে তাতে করোনা রোধে অতিদ্রুত টেস্টিং এর ব্যবস্থা করা হয়েছে।

আর সেই লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে গত চব্বিশ ঘন্টায় প্রায় সাত লাখ মানুষের করোনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এছাড়াও প্রতি মিনিটে পাঁচশো টেস্টের ব্যবস্থা করা হয়েছে। সারা দেশে এখনও পর্যন্ত প্রায় ২,৪১,০৬,৫৩৫ টি করোনা পরীক্ষা করা হয়েছে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।