গুয়াহাটি: গোটা এলাকায় ‘সন্ত্রাস’ চালিয়ে অবশেষে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ল ‘বিন লাদেন’। না, এই লাদেন কোনও জঙ্গি নেতা নয়। একটা দাঁতাল হাতি আর তাঁকে ঘিরেই কার্যত তটস্থ ছিলেন রঙ্গোলী জঙ্গলের মানুষেরা।
হাতিটিকে কাবু করতে ঘুমপাড়ানি গুলি ছোঁড়েন বন দফতরের আধিকারিকেরা। রঙ্গোলী জঙ্গল থেকে ওরাং জাতীয় উদ্যানে স্থানান্তরিত করে চিকিৎসাও চলছিল। তবে, শেষরক্ষা হয়নি মৃত্যুর কাছে হার মেনেছে ৩৫ বছর বয়সী এই দাঁতাল হাতি।

রঙ্গোলী জঙ্গলে তাণ্ডব চালানোর জেরে তাঁকে মৃত সন্ত্রাসবাদী ওসামা বিন লাদেনের নামে ‘বিন লাদেন’ নাম রেখেছিলেন স্থানীয় লোকেরা। বন দফতরের তরফ থেকে জানানো হয়, ‘পশুটি ঠিকঠাকই ছিল কিন্তু রবিবার ভোর থেকে হাতিটির অবস্থার অবনতি হয়। ওই দিন ভোর সাড়ে পাঁচটায় মারা যায় দাঁতালটি।’ ইতিমধ্যেই ঘটনার পূর্ণ তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে অসম সরকার। বিজেপি সাংসদ পদ্মা হাজারিকার উপস্থিতিতেই পশু চিকিৎসকদের একটি দল গিয়ে হাতিটিকে ঘুম পাড়ানি গুলি ছুঁড়ে কাবু করে।

প্রথমে হাতিটিকে সুস্থ করে আবার জঙ্গলেই ফিরিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল বন দফতর। কিন্তু, আবার হামলা হতে পারে এই মনে করে প্রতিবাদে নামেন স্থানীয় মানুষ। তাই হাতিটিকে নিজেদের হেফাজতে রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল বন দফতরের আধিকারিকেরা। তবে, প্রয়োজন পড়ল না সে সব কিছুরই। রবিবার ভোরেই চিরঘুমে চলে গেল ‘বিন লাদেন’।