প্রতীকি ছবি

দিশপুর: ৫ বছরের এক শিশুকে ধর্ষণ করে খুন করার জেরে এক অভিযুক্তকে মৃত্যুদণ্ডের আদেশ শোনাল অসমের এক আদালত। জানা গিয়েছে ওই নাবালিকাকে ধর্ষণ করে নৃশংস ভাবে খুন করা হয়েছিল। আর সেই অভিযোগের তদন্ত দীর্ঘদিন চলার পরে অবশেষে রায় দিল ওই আদালত। ফলে ওই নাবালিকার পরিবার এই লড়াইতে জয়ী হয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে।

জানা গিয়েছে, ঘটনাটি ঘটেছিল অসমের দেওকরাই চা বাগান এলাকাতে। যা বিস্বনাথ জেলায় রয়েছে। বিচারকের তরফে অভিযুক্তের বিরুদ্ধে ৩৬৩,৩৭৬(এ), ৩০২,২০১ আইপিসির ধারাতে শাস্তি ঘোষণা করা হয়েছে। এছাড়াও পকসো আইন অনুসারেও তার বিরুদ্ধে শাস্তি ঘোষণা করা হয়েছে। জানা গিয়েছে অভিযুক্ত ওই নির্যাতিতা নাবালিকার পরিবারের অত্যন্ত পরিচিত ছিলেন। জানা গিয়েছিল অভিযুক্ত ব্যতি ওই নাবালিকাকে একটি জগলে নিয়ে গিয়েছিলেন চকলেট দেওয়ার অজুহাতে। আর তারপরে সেখানেই তাকে ধর্ষণ করে খুন করেন।

নির্যাতিতা নাবালিকার পরিবারের তরফে অভিযুক্তের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছিল। আর তারপরে পুলিশের তরফে শুরু হয়েছিল বিস্তারিত তদন্ত। অভিযুক্তের বিরুদ্ধে একাধিক ধারাতে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছিল। ওই পরিবারের আইনজীবীর তরফে জানানো হয়েছে অভিযুক্তকে মৃত্যুদণ্ডের সাজা দেওয়া হয়েছে। ২০১৮ সালে ঘটে যাওয়া এই ঘৃণ্য ঘটনার শাস্তি হওয়াতে এই লড়াইতে জয়ী হল ওই নাবালিকার পরিবার। আইনজীবীর তরফে জানানো হয়েছে অভিযুক্তের নাম মঙ্গল পাইক। তিনি ওই নাবালিকার পরিবারের চেনা সদস্য ছিলেন।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।