ঢাকা: চার বছর আগের সময়। বাংলাদেশে তখন লাগাতার মুক্তমনা চিন্তাবিদ ও বিজ্ঞানভিত্তিক যুক্তিবাদী লেখকদের খুনের পর্ব চালাচ্ছিল উগ্র ইসলামিক সংগঠনগুলি৷ সেই সময় ২০১৫ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি অমর একুশে গ্রন্থমেলা দেখে ফেরার পথে আনসারুল্লা বাংলা টিম(এবিটি) জঙ্গিরা কুপিয়ে খুন করে বাংলাদেশি ব্লগার অভিজিৎ রায়কে। হামলায় জখম হয়েছিলেন তাঁর স্ত্রী রফিদা আহমেদ বন্যা।

ঢাকায় এবিটি (এখন আনসার আল ইসলাম) জঙ্গিদের সেই হামলার কথা স্বীকার করে পুরো পরিকল্পনার দায় নেয় আল কায়েদা ভারতীয় উপমহাদেশ শাখার প্রধান আসিম ওমর। তাকে নিকেশ করা হয়েছে আফগানিস্তানে। আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যমগুলির রিপোর্ট, আফগানিস্তানে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন চলার মাঝেই বিরাট সামরিক অভিযানে নিকেশ হয়েছে আসিম ওমর৷

তবে আফগান ও মার্কিন যৌথ বাহিনি এই অভিযানের কথা সরকারিভাবে জানায়নি৷ জানা গিয়েছে, জঙ্গি আসিম ওমর ভারতের উত্তর প্রদেশের বাসিন্দা৷ পরে আল কায়েদা সগঠনের হয়ে আফগানিস্তানে চলে যায়৷ পরে তারই নির্দেশে ভারত-বাংলাদেশে ছড়ায় আল কায়েদা ভারতীয় উপমহাদেশ। ঢাকায় ব্লগার যুক্তিবাদী অভিজিৎ রায়কে কুপিয়ে খুনের পর আন্তর্জাতিক মহলে তীব্র আলোড়ন ছড়িয়েছিল।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র থেকে পরিচালিত আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদী কার্যকলাপ নিয়ে তথ্য সরবরাহকারী সাইট ইন্টেলিজেন্স জানায়, আসিম ওমর প্রথম এক ভিডিও বার্তায় দাবি করে, তার সংগঠন আল-কায়েদা অভিজিৎকে খুন করিয়েছে৷ একাধিক গোয়েন্দা সংস্থার দাবি, ২০১৪ সালের সেপ্টেম্বর থেকে আল-কায়েদার ভারতীয় উপমহাদেশ শাখার (একিউআইএস) প্রধান ছিল আসিম ওমর

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.