মুম্বই: বুধবারই দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে পাড়ি দিয়েছে টিম ইন্ডিয়া৷ তিন টেস্টের সিরিজ ছাড়াও প্রোটিয়াদের বিরুদ্ধে ছ’টি ওয়ান ডে এবং তিনটি টি-২০ ম্যাচ খেলবে ভারত৷ পাঁচ পেসার ও দুই স্পিনার দলে রেখেছে বিরাটবাহিনী৷

আরও পড়ুন: আফ্রিকান সাফারিতে ‘সেকেন্ড হনিমুন’ বিরুষ্কার

দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতেও অশ্বিন-জাদেজার সাফল্য নিয়ে আশাবাদী টিম ইন্ডিয়ার ভাইস-ক্যাপ্টেন অজিঙ্কা রাহানে৷
সিরিজের প্রথম টেস্ট ৫ জানুয়ারি, কেপ টাউন৷ নিউল্যান্ডসের বাইশ গজে ভেলকি দেখাতে পারেন রবিচন্দ্রন অশ্বিন ও রবীন্দ্র জাদেজা৷ বিদেশেও সফল হওয়ার অস্ত্র রয়েছে অশ্বিন ও জাদেজার কাছে৷ পাঁচ দিনের ক্রিকেটে বিরাট কোহলির ডেপুটি জানান, ‘শুধু ভারতের মাটিতেই নয়, অশ্বিন ও জাদেজা দু’জনেরই বিদেশের মাটিতে পারফর্ম করার ক্ষমতা রয়েছে৷ ঘরের মাঠে বোলিং করার সময় একটি নির্দিষ্ট ছকে বোলিং করতে হয়, কিন্তু বিদেশে ওরা স্টাইল বদলে বোলিং করবে৷’

আরও পড়ুন: বিরাটের দলে ‘X-ফ্যাক্টর’ পান্ডিয়া

পাঁচ বছর পর ফের প্রোটিয়া সফরে টিম ইন্ডিয়া৷ শেষবার ২০১৩ মহেন্দ্র সিং ধোনির নেতৃত্বে দুই টেস্টের সিরিজ ০-১ হেরেছিল ভারত৷ জো’বার্গে প্রথম টেস্ট ড্র করলেও ডারবানে দ্বিতীয় টেস্ট হেরেছিল টিম ধোনি৷ এবার ধোনির থেকে নেতৃত্বের ব্যাটন উঠেছে কোহলির হাতে৷ দক্ষিণ আফ্রিকায় এখনও পর্যন্ত টেস্ট সিরিজের স্বাদ পায়নি ভারত৷ টানা ৯টি টেস্ট জিতে রিকি পন্টিংয়ের ছোঁয়া বিরাটের সামনে প্রোটিয়া সফর বিশ্ব রেকর্ডের হাতছানি৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।