হাওড়া : আজ মহাষ্টমী। ঐতিহ্য ও রীতি মেনে মহাষ্টমীর সকালে বেলুড় রামকৃষ্ণ মঠে অনুষ্ঠিত হল কুমারী পুজো। নিয়ম অনুযায়ী ১ থেকে ১৬ বছর পর্যন্ত বালিকাদের কুমারী হিসেবে নির্বাচিত করা যায়। এবছর হাওড়ার বেলুড় বাজারের শিবচন্দ্র চ্যাটার্জি স্ট্রিটের বাসিন্দা অয়ন্তিকা মুখোপাধ্যায়কে কুমারী রূপে আরাধনা করা হয়। তার বয়স ৪ বছর ১১ মাস।

এই পুজো দেখতে ভোর থেকেই সেখানে হাজির হয়েছেন দর্শনার্থীরা। ভোর চারটেয় মঙ্গলারতি দিয়ে শুরু হয় অনুষ্ঠান। রীতি মেনে বিভিন্ন অনুষ্ঠান চলছে। সকাল ৯টায় শুরু হয় কুমারী পুজো। এর জন্য নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থার আয়োজনও করা হয়েছে। আকাশপথে চালানো হচ্ছে ড্রোন দিয়ে নজরদারি। পাশেই যেহেতু গঙ্গা সেখানেও চালানো হচ্ছে কড়া নজরদারি।

১১৫ বছর ধরে বেলুড় মঠে কুমারী পুজো হয়ে আসছে। ১৯০২ সালে বেলুড় মঠের প্রথম দুর্গাপুজোয় সারদা মায়ের মোট নয়জন কুমারীকে পুজো করা হয়েছিল। শুধু ভারতেই নয়, বহির্ভারতেও শ্রীরামকৃষ্ণ মঠ ও মিশনের সকল শাখা কেন্দ্রে দুর্গাপুজোয় এই কুমারী পুজো হয়। তান্ত্রিক মতে, সকল কুমারীই আসলে দেবীর প্রতীক। শাস্ত্রমতে তবে শুধুমাত্র তাকে ঋতুমতী হওয়া চলবে না। সেই অনুযায়ী কুমারীর বয়স হতে হয় ষোলোর মধ্যে।  বেলুড় মঠে দুর্গাপুজোর অন্যতম আকর্ষণ হল এই কুমারী পুজো। স্বামী বিবেকানন্দ একাধিক কুমারীকে পুজো করেছিলেন৷ এদিন কুমারী পুজোয় উপস্থিত ছিলেন রামকৃষ্ণ মঠ ও মিশনের প্রেসিডেন্ট মহারাজ স্বামী স্মরণানন্দ মহারাজ-সহ অন্য সন্ন্যাসীরা।
কুমারী পুজোর পাশাপাশি মণ্ডপে মণ্ডপে শুরু হয়েছে অষ্টমীর অঞ্জলি দেওয়ার ভিড়৷ বৃষ্টির পূর্বাভাসকে উপেক্ষা করেই সকাল থেকেই রাস্তায় নেমেও পড়েছেন মানুষ।