হায়দরাবাদ: বিজেপির সুরেই সুর মেলালেন এআইএমআইএম প্রধান আসাদুদ্দিন ওয়াইসি। দেশের অন্যতম প্রধান বিজেপি বিরোধী বলেই নিজেকে দাবি করেন হায়দরাবাদের সাংসদ। বিভিন্ন সময়ে নানাবিধ ইস্যুতে বিজেপি এবং নরেন্দ্র মোদীকে আক্রমণ করে থাকেন ওয়াইসি।

সপ্তদশ লোকসভা নির্বাচনের শেষে সেই ব্যক্তির মুখেই শোনা গেল ভিন্ন সুর। যার সঙ্গে মিলে যাচ্ছে বিজেপি নেতাদের মন্তব্য। লোকসভা নির্বাচনে বিভিন্ন সময়ে অভিযোগ উঠেছে কমিশনের বিরুদ্ধে। প্রশ্ন উঠেছে ইভিএম-এর ভূমিকা নিয়েও। বিজেপিকে সুবিধা করে ভোটের নির্ঘন্ট তৈরি করা হয়েছিল বলে অভিযোগ করেছিলেন তৃণমূলনেত্রী মমতা। একই সঙ্গে ইভিএম কারচুপির অভিযোগ করেছিল অনেক অবিজেপি দল।

বিরোধিদের অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছিল বিজেপি শিবির। নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকেও একই দাবি করা হয়েছিল। এরপরেই বিজেপির সঙ্গে নির্বাচন কমিশনের আঁতাতের অভিযোগ করে বিরোধীরা। প্রশ্ন ওঠে কমিশনের নিরপেক্ষতা নিয়েও।

যদিও বিজেপি বিরোধী সেই সকল দলের অভিযোগ সম্পূর্ণ খারিজ করে দিয়েছেন আসাদুদ্দিন ওয়াইসি। বৃহস্পতিবার চতুর্থবারের জন্য সাংসদ হিসেবে নির্বাচিত হওয়ার পরে তিনি বলেন, “নির্বাচন কমিশন নিজেদের নিরপেক্ষতা বজায় রেখেছে। ভিভিপ্যাট গুলি ১০০ শতাংশ সঠিক বলেই আমার বিশ্বাস।” এই ইভিএম এবং ভিভিপ্যাট নিয়েই প্রশ্ন তুলেছিল অবিজেপি দলগুলি। প্রযুক্তিগত রিগিং-এর অভিযোগ তুলেছিলেন অনেকে। এই বিষয়ে আসাদুদ্দিন ওয়াইসি বলেছেন, “ইভিএম-এর রিগিং হয়নি, হিন্দু মানসিকতার রিগিং হয়েছে।”

পাঁচ লক্ষ তিন হাজার ৩৭৬ ভোট পেয়ে নিকটবর্তী বিজেপি প্রার্থীকে দুই লক্ষের বেশি ভোটে হারিয়েছেন আসাদুদ্দিন। এই নিয়ে হায়দরাবাদ কেন্দ্র থেকে টানা চতুর্থবারের জন্য সাংসদ হলেন তিনি। ১৯৮৪ সাল থেকে ওই কেন্দ্রটি ওয়াইসি পরিবারের দখলেই রয়েছে।