স্টাফ রিপোর্টার, মালদহ: মালদহ থেকে কলকাতা রুটের হেলিকপ্টার পরিষেবা প্রায় বন্ধের হওয়ার মুখে পড়েছিল। কিন্তু সেই পরিষেবাতে এবার জোর দিয়েছে রাজ্য সরকার। জানা গিয়েছে, পরিবহন দপ্তরের তৎপরতায় যাত্রী স্বাচ্ছন্দের কথা মাথায় রেখে নতুন ভাবে হেলিকপ্টার পরিষেবাতে আগ্রহ বাড়ানোর পরিকল্পনা শুরু করেছে রাজ্য সরকার। সূত্রের খবর, দীর্ঘদিন ধরে অনিয়মিতভাবে চলা মালদহ-কলকাতা রুটের হেলিকপ্টার পরিষেবা ফের অক্টোবর মাস থেকে জোর কদমে পথ চলা শুরু করেছে। এই পুরো ব্যবস্থাটাই দেখছে এখন রাজ্য পরিবহন দফতর।

সূত্রের খবর, বুধবার দুপুর আড়াইটে নাগাদ মালদহ থেকে তিনজন যাত্রী নিয়ে কলকাতায় উড়ে যায় এই হেলিকপ্টারটি। যাত্রীরা যাতে কোনরকম হয়রানির মুখে না পড়েন। সুষ্ঠুভাবে হেলিকপ্টার পরিষেবা পাওয়ার জন্য টিকিট সংগ্রহ করতে পারেন তারও বিশেষ উদ্যোগ নিতে চলেছে রাজ্য সরকার। যদিও এখনও পর্যন্ত কলকাতার একটি বেসরকারি সংস্থার হাতেই মালদহ-কলকাতা রুটের এই হেলিকপ্টার চড়ার জন্য টিকিট কাটার ব্যবস্থা রয়েছে। পরবর্তীতে জানা গিয়েছে, মালদহ থেকে সরাসরি এই ব্যবস্থা করা হবে বলে পরিবহন দফতর সূত্রে খবর।

গত কয়েক মাস আগে বিভিন্ন জটিলতার কারনেই এবং যাত্রী না হওয়ায় অনিয়মিত ভাবে চলছিল মালদহ-কলকাতা হেলিকপ্টার পরিষেবা। এরপরে সেটি বন্ধ হয়ে যায় বলে অভিযোগ।

কিন্তু অক্টোবর মাস থেকে নিয়ম করে যাত্রী মেলায় ফের নতুনভাবে চলাচল শুরু হয়েছে মালদহ- কলকাতা রুটের এই হেলিকপ্টার পরিষেবা। জানা গিয়েছে, মালদহ শহর থেকে ঢিলছোড়া দূরত্বে ঘোড়াপীর এলাকায় রয়েছে বিমানবন্দর। যেখানে প্রতি বুধবার পাঁচ আসন বিশিষ্ট এই হেলিকপ্টার পরিষেবাটি মালদহ- কলকাতা যাতায়াতের জন্য ব্যবস্থা রয়েছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ওই হেলিকপ্টারের এক পাইলট জানিয়েছেন, ‘বর্ষার মরশুমে আবহাওয়া খারাপ থাকায় অনিয়মিতভাবে হেলিকপ্টার পরিষেবা চলছিল’। তিনি আরও জানিয়েছেন, ‘তাছাড়াও যাত্রী না থাকাতেও সমস্যা তৈরি হয়েছিল’ । কিন্তু অক্টোবর মাস থেকে নিয়ম করেই নির্দিষ্ট যাত্রী যাতায়াত করছে। মালদহ-কলকাতা হেলিকপ্টার পরিষেবা নতুন মোড় নিতে চলেছে বলে ওই পাইলট আশাবাদী। তবে অনেকেই আবার কলকাতা থেকে মালদহ শুধুমাত্র পর্যটক হিসেবে ঘুরতে আসছেন। সূত্রের খবর, কলকাতা থেকে সকাল দশটায় ছাড়া হচ্ছে হেলিকপ্টারটি । দেড় ঘণ্টার মধ্যেই সেটি মালদহ এসে পৌঁছাচ্ছে। অনেক যাত্রীরা আবার কলকাতা থেকে মালদহে ঘন্টাখানেক ঘুরে আবার দুপুর আড়াইটায় পুনরায় কলকাতার উদ্দেশ্যে রওনা দিচ্ছেন। নতুনভাবে পর্যটনের ক্ষেত্রে এই হেলিকপ্টার পরিষেবা এখন যাত্রীদের কাছে দ্রুত গন্তব্যে পৌঁছানোর দিশা দেখাচ্ছে ।

টিকিট সরবরাহকারী ওই হেলিকপ্টার পরিষেবার এক সংস্থার কর্তা সিতাংশু শর্মা জানিয়েছেন, মালদহ থেকে কলকাতা এবং কলকাতা থেকে মালদহ যাতায়াতের জন্য প্রতি আসন পিছু তিন হাজার টাকা টিকিট রয়েছে। যা অনলাইনে কাটার ব্যবস্থাও আছে । আরও জানা গিয়েছে, পাঁচ সদস্যের আসন বিশিষ্ট ওই হেলিকপ্টার সপ্তাহে একদিন করে শুধুমাত্র বুধবারেই এই পরিষেবাটি মিলবে যাত্রীদের জন্য।

পরিবহন দফতরের ডেপুটি সেক্রেটারি পূর্ণেন্দু প্রিয়াঙ্কার জানিয়েছেন, যাত্রী না হওয়ার কারণেই অনিয়মিত ছিল মালদা – কোলকাতা হেলিকপ্টার পরিষেবাটি। তবে এখন নতুন করে এই হেলিকপ্টার পরিষেবা চলাচল শুরু করেছে। রাজ্য সরকার বিভিন্নভাবে মানুষের সুবিধার ক্ষেত্রে এই পরিষেবাটটি চালু রেখেছে। বিশেষ করে অসুস্থ রোগীরা সহজেই চিকিৎসার জন্য কলকাতায় যাওয়ার ক্ষেত্রে এই হেলিকপ্টার পরিষেবা পাবেন। আপাতত নির্দিষ্ট একটি সংস্থায় অনলাইনের মাধ্যমে ওই হেলিকপ্টারে চলাচলের জন্য টিকিট বুকিং করতে হবে। পরবর্তীতে মালদহ শহরে নতুন করে হেলিকপ্টার পরিষেবার জন্য টিকিট কাউন্টার খোলার উদ্যোগ নেওয়া হবে৷