নয়াদিল্লি: পদত্যাগের সিদ্ধান্তে নাকি অনড় কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী৷ ফলে বাধ্য হয়েই বিকল্প খোঁজার রাস্তায় নেমেছেন কংগ্রেস সংসদীয় কমিটি৷ প্ল্যান বি-র পথে হেঁটে নতুন অন্তর্বতীকালীন সভাপতি খোঁজা হচ্ছে বলে সূত্রের খবর৷ টাইমস অফ ইণ্ডিয়া জানাচ্ছে, যদি সত্যিই কংগ্রেস সভাপতির পদ ছেড়ে দেন রাহুল গান্ধী, তাহলে সেই পদে সাময়িক ভাবে কে বসবেন, তার ভাবনা চিন্তা শুরু হয়েছে৷

প্রতিবেদন অনুযায়ী ইতিমধ্যেই নাম ঠিক করে ফেলেছে কংগ্রেস হাইকম্যাণ্ড৷ অন্তর্বর্তীকালীন কংগ্রেস সভাপতি হিসেবে বর্ষীয়ান নেতা একে অ্যান্টনির নাম উঠে এসেছে৷ যতদিন না নতুন স্থায়ী সভাপতি পাচ্ছে দল, ততদিন পর্যন্ত অ্যান্টনিই দলের যাবতীয় দায়িত্ব সামলাবেন বলে জানা গিয়েছে৷ যদিও, একাধিকবার দলের শীর্ষ নেতারা রাহুল গান্ধীকে সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনার জন্য আবেদন করেছেন৷ তবে বিশেষ লাভ হয়নি৷

আরও পড়ুন : ধেয়ে আসছে ভয়াবহ সাইক্লোন ‘Vayu’, জারি সতর্কতা

এমনকী কেরল সফরে গিয়ে ওয়ানাড়ের কংগ্রেস নেতারাও রাহুল গান্ধীকে বোঝানোর চেষ্টা করেন৷ কিন্তু মানেন নি তিনি৷ লোকসভা নির্বাচনে হারের দায় নিয়ে সরে যেতে চাইছেন তিনি৷ অন্ধ্রপ্রদেশ, অরুণাচল প্রদেশ, দিল্লি, গুজরাট, হরিয়ানা, হিমাচল প্রদেশ, জম্মু কাশ্মীর, মণিপুর, মিজোরাম, ওড়িশা, রাজস্থান, সিকিম, ত্রিপুরা, উত্তরাখণ্ড, আন্দামান নিকোবর, চণ্ডীগড়, দাদর নগর হাভেলি, দমন দিউ ও লাক্ষাদ্বীপে খাতা খুলতে পারেনি কংগ্রেস৷

কংগ্রেসের ঘনিষ্ঠ সূত্র বলছে শীর্ষ কংগ্রেস নেতাদের নিজের বিকল্প খোঁজার ভার দিতে চাইছেন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী৷ তিনি নাকি বলেছেন আমার বিকল্প খুঁজুন৷ এই ইস্যুতে একাধিকবার বৈঠক করেন রাহুল৷ সেখানে দলের নতুন সভাপতি খোঁজার পরামর্শ দেন তিনি৷ কারণ এই বিষয়ে তিনি সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেছেন, যে সভাপতির পদ থেকে সরছেন তিনি৷ তাঁর এই সিদ্ধান্তের বদল হবে না বলেই কংগ্রেস সূত্র জানাচ্ছে৷

এনডিটিভিকে দেওয়া সাক্ষাতকারে সেই সূত্র মারফত খবর লোকসভা নির্বাচনের চূড়ান্ত ফলের পর দলের বিপর্যয়ের দায়িত্ব নিজের ঘাড়েই নিচ্ছেন কংগ্রেস সভাপতি৷ ফলে পদ ছাড়ার ইচ্ছা প্রকাশ করেন তিনি৷ তবে কংগ্রেসের অন্যান্য নেতারা তাঁর এই সিদ্ধান্তে সহমত নন বলেই খবর৷ কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী এতটাই ভেঙে পড়েছেন, যে সদ্য নির্বাচিত কংগ্রেস সাংসদদের সঙ্গেও তিনি দেখা করতে চাইছেন না৷ তাঁর যাবতীয় বৈঠকও বাতিল বলেই ঘোষণা করেছেন রাহুল৷

আরও পড়ুন : নজরে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক, ভারত সফরে মার্কিন বিদেশ সচিব

সূত্রের খবর, রাহুলের এই ইচ্ছাতে সহমত তাঁর মা সোনিয়া গান্ধী ও বোন প্রিয়াঙ্কা গান্ধীও৷ প্রাথমিকভাবে তাঁরা রাহুলের ইচ্ছাকে গুরুত্ব না দিলেও, পরে বিষয়টি বোঝেন ও রাহুলের সঙ্গে একমত হন৷

তবে বৈঠকে লোকসভা ভোটে কংগ্রেসের ভরাডুবির দায় নিজের কাঁধে নিয়েও দলের প্রবীণ নেতাদের দোষ দেন রাহুল গান্ধী৷ দলের থেকেও রাজনীতিতে ছেলেদের কেরিয়ার দাঁড় করানোর চিন্তাতেই ভোটে কংগ্রেসের এই শোচনীয় ফল বলে মন্তব্য করেন তিনি৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.