পানাজি : দেশের প্রথম মহিলা পরিচালিত যুদ্ধজাহাজ আইএনএস তারিণী ভারতে ফিরছে৷ বিশ্বভ্রমণ শেষ করে ঘরে ফিরছেন লেফটেন্যান্ট বর্তিকা জোশী, লেফটেন্যান্ট বিজয়া দেবী, প্রতিভা জামওয়াল, পি স্বাতী, পায়েল গুপ্ত ও ঐশ্বর্য বোদ্দাপাতি। অভিযানের পোষাকি নাম, ‘নাবিকা সাগর পরিক্রমা।’

ভারতীয় মহিলাদের বিশ্বের দরবারে উজ্জ্বল করতে কেন্দ্র সরকারের প্রকল্প এই নাবিকা সাগর পরিক্রমা৷ তারই অংশ হিসেবে জলে ভাসার পরিকল্পনা করে আইএনএস তারিণী৷ এই মহিলা নাবিকদের স্বাগত জানানোর জন্য উপস্থিত থাকবেন কেন্দ্রীয় প্রতিরক্ষামন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ৷

২১ মে বেলা ৪.১৫ নাগাদ অর্ভ্যথনা জানানো হবে এই মহিলা নাবিকদের৷ নৌবাহিনীর মুখপাত্র জানান, মহিলা নাবিকদের এই সাফল্যে গর্বিত দেশ৷ আগামী সোমবার দেশের মাটিতে পা রাখবে ছয় মহিলা নাবিক৷ সেদিনই প্রতিরক্ষামন্ত্রী তাদের অর্ভ্যথনা জানাবেন৷

২০১৭ সালের ১০ই সেপ্টেম্বর আইএনএস তারিণী নিজের যাত্রা শুরু করে৷ এপ্রিলে এই পরিক্রমা শেষ হওয়ার কথা থাকলেও, কিছু যান্ত্রিক ত্রুটির জন্য তা সম্ভব হয়নি৷ মরিশাস বন্দরে দীর্ঘ সময় এই যুদ্ধ জাহাজের মেরামতি চলে৷

অস্ট্রেলিয়া, ফকল্যান্ড, নিউজিল্যান্ড, দক্ষিণ আফ্রিকায় এই জাহাজ ভ্রমণ করেছে৷ সমুদ্র দূষণ সম্পর্কে যাবতীয় তথ্য যোগাড় করেছেন মহিলা নাবিকরা৷ পাল তোলা নৌকো ‘আইএনএস তারিণী’ নিয়ে ২১ হাজার ৬০০ নটিক্যাল মাইল পাড়ি দিতে যাত্রা শুরু করেন এই ছয় মহিলা নাবিক৷ আরব সাগর, ভারত মহাসাগর, অস্ট্রেলিয়ান সাগর, দক্ষিণ মহাসাগর, প্রশান্ত মহাসাগর, আটলান্টিক মহাসাগর পার করে ফের ভারতে ফিরছেন তাঁরা৷ তার মাঝে পার্থের ফ্রেম্যান্টেল, ক্রাইস্টচার্চের লিটলটন, ফকল্যান্ডের পোর্ট স্ট্যানলি ও দক্ষিণ আফ্রিকার কেপ টাউনে নোঙর করেন ছয় কন্যা।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে দেখা করে ও প্রতিরক্ষামন্ত্রী নির্মলা সীতারমণের শুভেচ্ছা নিয়ে গোয়ার মাণ্ডবী জেটি থেকে ১০ সেপ্টেম্বর যাত্রা শুরু করেন বর্তিকা, বিজয়ারা।