চণ্ডীগড়: ফের এবার কালো পতাকার মুখে দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল৷ সোমবার পঞ্জাবে আপের মিছিল করার সময় তাঁকে কালো পতাকা দেখানো হয় বলে অভিযোগ৷ রাজ্যের সাংগ্রুর লোকসভা কেন্দ্রের আপ প্রার্থী ভাগবত মানের ডাকে একটি মিছিলে যোগ দেন কেজরিওয়াল৷ সেখানেই ঘটে এই বিপত্তি৷

তাঁকে ফেরত যেতে বলে শ্লোগানও তোলে বিক্ষোভকারীরা৷ মাদক ইস্যুতে রাজ্যের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করেছেন কেজরীওয়াল, এমনই অভিযোগ বিক্ষোভকারীদের৷ শুক্রবার পর্যন্ত পঞ্জাবে জনসভা ও মিছিল করবেন তিনি বলে খবর৷ ফলে তাঁর নিরাপত্তা বাড়ানো হয়েছে৷

বিক্ষোভকারীদের দাবি পঞ্জাবের গায়ে কালি লাগিয়েছেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী৷ কারণ পঞ্জাবকে তিনি মাদক কারবারের স্বর্গরাজ্য বলে উল্লেখ করেছেন৷ ২০১৪ সালের লোকসভা নির্বাচনে এক জনসভায় এই কথা বলেন তিনি৷

আরও পড়ুন : ইন্দিরার জরুরি অবস্থার জন্য ক্ষমা চাইলেন নাতি রাহুল

পাশাপাশি তিনি সেরাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী বিক্রম সিং মাজতিয়ার বিরুদ্ধে মাদক পাচারে যুক্ত থাকার অভিযোগ তুলেছিলেন৷ সেই ঘটনার উল্লেখ করে বিক্ষোভকারীরা কেজরিওয়ালের ক্ষমাপ্রার্থনার কথাও বলেন৷ সেই সময় মাজতিয়ার কাছে ক্ষমা চেয়েছিলেন কেজরিওয়াল৷ বিক্ষোভকারীদের দাবি এবার তাহলে পঞ্জাবের মানুষের কাছে ক্ষমা চাইতে হবে দিল্লির মুখ্যমন্ত্রীকে৷

এর আগে, রোড শো চলাকালীন এক ব্যক্তি কষিয়ে কেজরির গালে পাঁচ আঙ্গুলের ছাপ বসিয়ে দেন৷ তবে এই প্রথম নয়৷ এর আগেও বহুবার প্রকাশ্যে অপদস্থ হতে হয়েছে কেজরিকে৷ কখনও উড়ে এসেছে জুতো৷ কখনও মুখে ছিটিয়ে দেওয়া হয়েছে কালি৷ আর চড় তো বহুবার গালে পড়েছে৷

২০১৯ সালের ফেব্রুয়ারিতে দিল্লির নারেলা এলাকার ঘটনা৷ উন্মত্ত জনতা কেজরিওয়ালের গাড়ি ঘিরে ফেলে৷ লাঠি সোটা নিয়ে হামলা চালায়৷ প্রায় ১০০ মানুষ ওই দিন কেজরিওয়ালের গাড়ি আটকানোর চেষ্টা করেন৷ ওই দিন কেজরিওয়াল ২৫টি কলোনীর উন্নয়নমূলক কাজের উদ্বোধনে যাচ্ছিলেন৷

আরও পড়ুন : দ্বিতীয়বার নির্বাচন হারের মুখে কংগ্রেস, ভবিষ্যতবাণী প্রকাশ জাভড়েকরের

২০১৮ সালের নভেম্বর মাসে দিল্লির সচিবালয়ে কেজরিওয়ালের ঘরের বাইরে তাঁর মুখে লঙ্কার গুঁড়ো ছড়িয়ে দেন এক ব্যক্তি৷ পুলিশ জানায়, মুখ্যমন্ত্রীর চোখে লঙ্কার গুঁড়ো ছেটাতে চেয়েছিল অভিযুক্ত৷ পরে তাকে ধরা হয়৷ ধরা পড়ার পর চিৎকার করতে করতে জানায় জেল থেকে বেরিয়ে এলে কেজরিওয়ালকে গুলি করে মারবে সে৷

নিন্দুকেরা বলে থাকে, দেশের কোনও মুখ্যমন্ত্রীকে প্রকাশ্যে এতবার লাঞ্ছনা সহ্য করতে হয়নি যতটা কেজরিকে করতে হয়েছে৷ ২০১৩ সাল থেকে শুরু হয়েছে দিল্লির মুখ্যমন্ত্রীর উপর হামলার ‘সিলসিলা’৷ ২০১৯ এ এসেও থামার লক্ষ্মণ নেই৷