কলকাতাঃ  গত কয়েকদিনের লড়াই শেষ। চলে গেলেন প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি। সুষমা স্বরাজের পর ভারতীয় রাজনীতিতে আরও এক নক্ষত্র পতন। গত কয়েকদিন ধরে এইমস হাসপাতালে চলে লড়াই। অবশেষে শনিবার দুপুরে হার মানলেন তিনি। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৬৬ বছর। তাঁর মৃত্যুতে ভারতীয় রাজনীতিতে নেমে এসেছে শোকের ছায়া। বিরোধীতা ভুলে দেশের প্রাক্তন অর্থমন্ত্রীর প্রয়াণে শোকপ্রকাশ জানাচ্ছেন সমস্ত রাজনৈতিক দলের রাজনেতারা।

অরুণ জেটলির প্রয়াণে গভীর শোকপ্রকাশ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি তাঁর সোশ্যাল মিডিয়াতে লিখেছেন, জেটলি শুধু একজন রাজনীতিক নন, তিনি একজন দক্ষ আইনজীবী। সব দলের সদস্যই তাঁকে পছন্দ করতেন। তাঁর কাজ ভারতীয় রাজনীতি চিরকাল মনে রাখবে। সমবেদনা জানিয়েছেন প্রাক্তন এই কেন্দ্রীয়মন্ত্রীর পরিবারের প্রতি। মুখ্যমন্ত্রী লিখেছেন, সব রাজনৈতিক দলের কাছেই ছিলেন শ্রদ্ধার মানুষ ছিলেন অরুণ জেটলি। ভারতীয় রাজনীতিতে তাঁর অবদান অনস্বীকার্য।

দীর্ঘদিন ধরেই তাঁর চিকিৎসা চলছিল। তবে গত ৯ অগস্ট গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় তাঁকে এইমস হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তাঁর শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাঁকে ক্রিটিক্যাল কেয়ার ইউনিটে রাখা হয়েছিল। লাইফ সাপোর্টে ছিলেন তিনি। গত কয়েকদিনে রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী থেকে শুরু করে বিজেপির সব শীর্ষস্তরের নেতাই তাঁকে দেখতে ছুটেছিলেন এইমসে।