নয়াদিল্লি: মন্ত্রীত্ব থেকে অবসরের সিদ্ধান্ত অরুণ জেটলির৷ চিঠি দিয়ে প্রধানমন্ত্রীকে নিজের সিদ্ধান্তের কথা জানিয়ে দিলেন জেটলি৷

প্রথম মোদী মন্ত্রিসভায় অর্থমন্ত্রকের দায়িত্ব সামলেছেন জেটলি৷ কিন্তু গত দেড় বছর ধরেই শারীরিকভাবে অসিস্থ ছিলেন তিনি৷ তাঁর কিডনি প্রতিস্থাপন হয়৷ ফলে গত কয়েক মাস তিনি অর্থমন্ত্রকে নিয়মিত ছিলেন না৷ তাই তাঁকে যেন মন্ত্রীত্বের মতো গুরু দায়িত্ব না দেওয়া হয়৷ এদিন প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি দিয়ে সেই আবেদনই করেন অরুণ জেটলি৷

এর আগে একই কথা বিজেপি নেতৃত্বকে মৌখিকভাবে জানিয়েছিলেন মোদী মন্ত্রিসভার অভিজ্ঞ এই সদস্য৷ এদিন জানালেন চিঠি দিয়ে৷ তবে, জেটলি জানিয়েছেন দলের প্রয়োজনে ও সরকারের কাজে প্রয়োজনে সহযোগিতা তিনি করবেন৷

বিগত পাঁচ বছরে মোদী মন্ত্রিসভায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছিলেন জেটলি৷ তাঁর মন্ত্রীত্বকে ‘এক যাত্রা’ বলে উল্লেখ করেন তিনি৷ চিঠি তে জেটলি জানিয়েছেন মোদী মন্ত্রিসভায় কাজ করে তিনি আনন্দিত৷ তাঁর মতে সম্পূর্ণটাই ছিল শিক্ষণীয়৷ অর্থমন্ত্রী পদের জন্য তিনি অত্যন্ত গর্বিত বলেও চিঠিতে উল্লেখ করেন জেটলি৷

আরও পড়ুন: পচা আলুতেই স্বাদ বাড়ে, নাম না করে সুজিতকে নিশানা সব্যসাচীর

দায়িত্ব ছাড়াতে চেয়েছেন অরুণ জেটলি৷ এবার তাহলে অর্থমন্ত্রকের মত গুরুত্বপূর্ণ পদে কে বসবেন? জয়ের পর থেকেই এই প্রশ্নই ঘুরপাক খাচ্ছে বিজেপির অন্দরে৷ জেটলির অসুস্থতার সময় তাঁর কাজ সামলেছেন পিযূস গোয়েল৷ এমনকি চলতি বছর অন্তবর্তী বাজেট পেশের সময়ও উপস্থিত ছিলেন না অর্থমন্ত্রী৷ ফলে সেই বাজেট পেশ করেন গোয়েলই৷ তাই অর্থমন্ত্রক যেতে পারে তাঁর কাছেই৷ গেরুয়া শিবিরের অন্দরের খবর এমনটাই৷