স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: ভাটপাড়ায় ভোটাভুটিতে তৃণমূলের পক্ষে পুরসভার নতুন চেয়ারম্যান হলে অরুণ বন্দ্যোপাধ্যায়। ভাটপাড়া পৌরসভা ২৫ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর তিনি।

মঙ্গলবার সকাল ১১টায় ভাটপাড়া পুরসভার নতুন চেয়ারম্যান নির্বাচন ছিল৷ এদিন খামবন্দী পুর প্রধানের নাম নিয়ে আসেন ভাটপাড়া বারাকপুরের তৃণমূল কংগ্রেসের চেয়ারম্যান নির্মল ঘোষ৷ খাম খোলার পরেই জানা যায় নতুন চেয়ারম্যান হচ্ছেন অরুণ বন্দ্যোপাধ্যায়। বিজেপির সৌরভ সিংকে সরিয়ে চেয়ারম্যান হলেন তিনি। তৃণমূল সূত্রে খবর, ২৩ নম্বরের কাউন্সিলর সত্যেন রায় ও ২৪ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর হিমাংশু সরকার পুর প্রধান হওয়ার দৌড়ে ছিলেন।

গত ৭ জানুয়ারি ৩৫ আসনের ভাটপাড়া পুরসভায় চেয়ারম্যান সৌরভ সিংয়ের অপসারণ চেয়ে অনাস্থা ভোটে তৃণমূল জিতলেও আদালত তাকে অবৈধ ঘোষণা করে। পাল্টা চ্যালেঞ্জ করে তৃণমূল আদালতে গেলে আদালত ৯ জানুয়ারি চেয়ারম্যান নির্বাচনের পরবর্তী পদ্ধতি ঠিক করতে নির্দেশ দেয়।

প্রসঙ্গত, ২৩ মে অর্জুন সিং বারাকপুর লোকসভা থেকে বিজেপি সাংসদ হওয়ার পর ভাটপাড়া পৌরসভা হাতবদল হয়। নিজে চেয়ারম্যান পদ ছেড়ে সেই চেয়ারে বসিয়ে এসেছিলেন ভাইপো সৌরভ সিংকে। কিন্তু হালিশহর, কাঁচরাপাড়া, গারুলিয়া, বনগাঁর মতো অর্জুন-দুর্গের ভাটপারা পুরসভাও হাতে রাখতে পারল না বিজেপি। এদিন ভাটপাড়া দখলের পর নির্মল ঘোষ জানিয়েছেন, “মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তৃণমূল নেতৃত্বের ওপর ভাটপাড়ার মানুষের আস্থা রাখার জন্য আমরা সকলেই তাদের কাছে কৃতজ্ঞ।”

এদিন বিজেপির কাউন্সিলররা চেয়ারম্যান নির্বাচনে অংশ নেননি। বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিং আগেই বলেছেন, “উচ্চ আদালতের ডিভিশন বেঞ্চের রায় এখনও আসেনি। তার আগেই তৃণমূল চেয়ারম্যান নির্বাচন করছে। এটা আইন বিরোধী। তৃণমূল প্রথম থেকেই আইন না মেনে কাজ করছে। সুপ্রিম কোর্ট একে বৈধতা দেবে না। আমরা ডিভিশন বেঞ্চের রায়ের কপি পাওয়ার পরেই সুপ্রিম কোর্টে মামলা ঠুকব।”

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।