প্রযুক্তি ছাড়া আজকের দিনে এক মুহূর্তও ভাবা যায় না। অথচ এই প্রযুক্তিই এক এক সময়ে আমাদের বড় বিপদে ফেলতে পারে। তেমনই এক ভয়াবহ অভিজ্ঞতার কথা শেয়ার করলেন অভিনেত্রী অরুণিমা ঘোষ।

আগামী ২ অক্টোবর মুক্তি পেতে চলেছে দেব-পরমব্রত অভিনীত ছবি পাসওয়ার্ড। এই ছবিতে সাইবার ক্রাইম সংক্রান্ত বিভিন্ন বিষয় উঠে আসবে। তাই ইন্টারনেট ব্যবহার করার ক্ষেত্রে মানুষকে সচেতন করতে বেশ কিছু ভিডিও শেয়ার করছেন দেব। দেব এন্টারটেনমেন্ট ভেনচার্স-এর টুইটার থেকে প্রকাশ করা ভিডিও-তে অরুণিমা তাঁর অভিজ্ঞতা শেয়ার করেছেন।

অরুণিমা জানান, এক ব্যক্তি তাঁকে অন্য নামে অ্যাকাউন্ট খুলে বিভিন্ন রকমের মেসেজ করত। অরুণিমা বলছেন, এক ব্যক্তি আমার সব ছবি দেখেছে। আমার সব টেলি ধারাবাহিক দেখেছে। আমার ছবির সংলাপ মুখস্থ, গান মুখস্থ। সে কখনও আমায় ইনস্টাগ্রামে ভাল কথা লিখত, কখনও খারাপ কথা লিখত। আমি কোথায় ওয়র্কআউট করতে যাই, কোথায় কেনাকাটা করতে যাই, কোথায় খেতে যাই, সেগুলি সব সে জানে। সে আমার ব্যাপারে সব জানে। আমার বিল্ডিং-এও নাকি সে এসেছে। আমার ফ্ল্যাট নম্বর জানে।

তবে শুধু ইনস্টাগ্রামই নয়। অরুণিমার ফোন নম্বরও জোগাড় করেছিল সে। অরুণিমা বলছেন, সে কখনও হাওড়ার নম্বর থেকে ফোন করছে। কখনও আবার সোদপুরের নম্বর থেকে ফোন করছে। ফোন করে বলছে, আমায় বিয়ে না করলে এই করে দেব। ওই করে দেব। এর পরেই। অ্যাক্সিডেন্ট করিয়ে দেওয়ার এবং আমার পরিবারকে নিয়েও হুমকি দেয় সে।

অরুণিমা জানান সেই ছেলেটির প্রায় ২৫ থেকে ৩০টি অ্যাকাউন্ট তিনি ব্লক করেছিলেন। অবশেষে অভিনেত্রী সাইবার ক্রাইম দফতরে অভিযোগ জানান। সেই মতো পুলিশ তাকে গ্রেফতারও করে। কিন্তু ৭-৮ দিন পরে জেল থেকে ছাড়া পাওয়ার পরে সে আবার অরুণিমার বাড়িতে হানা দেয়। তখন বাধ্য হয়ে অভিনেত্রীকে আবার পুলিশে খবর দেন এবং আবার তাকে গ্রেফতার করা হয়।

প্রসঙ্গত, আগামী ২ অক্টোবর মুক্তি পেতে চলেছে কমলেশ্বর মুখোপাধ্যায় পরিচালিত ছবি পাসওয়ার্ড। এই ছবিতে অভিনয় করেছেন দেব, পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়, রূক্মিণী মৈত্র, পাওলি দাম।