জুরিখ: বায়ার্ন মিউনিখের কোচ ছাঁটাইয়ের পর পুনরায় আলোচনায় উঠে এসেছিলেন আর্সেনালের প্রাক্তন ম্যানেজার আর্সেন ওয়েঙ্গার৷ অভিজ্ঞ ফরাসি কোচ গত বছর আর্সেনাল ছাড়ার পর থেকে নতুন কোনও ক্লাবের দায়িত্ব গ্রহণ করেননি৷ ফুটবল থেকে দূরে থাকা নেহাৎ অপছন্দ বলে বায়ার্নের কোচ হতে আগ্রহ প্রকাশ করেছিলেন ওয়েঙ্গার৷ তবে শেষমেশ সেই ইচ্ছাও ত্যাগ করতে হয় তাঁকে৷ কেননা ইতিমধ্যে আরও বৃহত্তর আঙ্গিকে নিজেকে জড়িয়ে ফেলেন তিনি৷

বিশেষ কোনও ক্লাবের নয়, ওয়েঙ্গার কাঁধে তুলে নিলেন গোটা বিশ্বের ফুটবলের সার্বিক উন্নতির গুরুদায়িত্ব৷ তাঁকে এই দায়িত্ব তুলে দেয় ফুটবলের সর্বোচ্চ নিয়ামক সংস্থা ফিফা৷ ওয়েঙ্গারকে গ্লোবাল ফুটবল ডেভেলপমেন্ট প্রজেক্টের প্রধান নিযুক্ত করে ফিফা৷ ওয়েঙ্গারের পদের পোশাকি নাম চিফ অফ গ্লোবাল ফুটবল ডেভেলপমেন্ট৷

আরও পড়ুন: সিটিকে হারিয়ে শীর্ষস্থান মজবুত করল লিভারপুল

মাস দু’য়েক আগেই ওয়েঙ্গারের কাছে প্রস্তব পৌঁছেছিল ফিফার তরফে৷ বিশেষ কয়েকটা দিক বিবেচনার পর বুধবার ফিফার প্রস্তাব গ্রহণ করেন তিনি৷ ফিফা প্রেসিডেন্ট জিয়ানি ইনফান্তিনো নিজে নতুন ভূমিকায় স্বাগত জানান ওয়েঙ্গারকে৷

আর্সেন ওয়েঙ্গারকে একসঙ্গে একাধিক দায়িত্ব তুলে দেয় ফিফা৷ বিশ্বব্যাপী ছেলে ও মেয়েদের ফুটবলের উন্নয়নের রূপরেখা ছকা ছাড়াও তিনি নিয়ম বদলের প্যানেলেও অংশ নেবেন৷ কোচিং প্রোগ্রামে সক্রিয় ভূমিকা নেওয়ার পাশাপাশি ফিফার বিভিন্ন টুর্নামেন্টের টেকনিক্যাল বিশ্লেষণও করবেন ওয়েঙ্গার৷ এককথায় ফিফার টেকনিক্যাল ডিরেক্টরের পদেও আসীন হলেন তিনি৷

আরও পড়ুন: লিগ টেবলের দিকে তাকাচ্ছেন না, ব্রিটনকে হারিয়ে জানালেন সোল্কজায়ের

দীর্ঘ ২২ মরশুম আর্সেনালে কোচিং করানোর পর গত বছরই প্রিমিয়র লিগ ক্লাবের দায়িত্ব ছাড়েন ওয়েঙ্গার৷ তাঁর কোচিংয়ে আর্সেনাল তিনবার প্রিমিয়র লিগ জেতে৷ সাতটি এফএ কাপের ট্রফি ঘরে তোলে৷ চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ও উয়েফা কাপের ফাইনালেও ওঠে৷