গোয়া: শনিবার চার্চিল-ইন্ডিয়ান অ্যারোজ ম্যাচের ফলাফলের উপর নির্ভর করছিল ইস্টবেঙ্গলের শীর্ষে থাকা না থাকার বিষয়টি। গোয়ার ফতোরদা স্টেডিয়ামে এদিন পিছিয়ে পড়েও দুরন্ত ফর্মে থাকা চার্চিলের বিরুদ্ধ ২-১ গোলে জয় তুলে নিল অ্যারোজ। যার ফলে আই লিগ টেবিলের শীর্ষে থেকেই বছর করতে চলেছে ইস্টবেঙ্গল।

৪ জানুয়ারি ইস্টবেঙ্গলের বিরুদ্ধেই ঘরের মাঠে মুখোমুখি হবেন উইলিস প্লাজারা। তার আগে অ্যারোজের বিরুদ্ধে এদিনের হার বার্নার্দো তাবারেসের দলের আত্মবিশ্বাসে যে খানিকটা ধাক্কা দেবে তা একপ্রকার নিশ্চিত। মাঝে রিয়াল কাশ্মীরের বিরুদ্ধে ম্যাচটি স্থগিত হওয়ার কারণে মোহনবাগানের বিরুদ্ধে বড় জয়ের ২০ দিন পর এদিন ঘরের মাঠে আই লিগের ম্যাচ খেলতে নেমেছিলেন প্লাজারা।

ফতোরদায় এদিন প্রথমার্ধে দাপট নিয়েই ফুটবল খেলে চার্চিল ব্রাদার্স। একাধিক সুযোগ তৈরি করেও কিছুতেই গোলের মুখ খুলতে পারছিল না তাবারেসের ছেলেরা। অধিনায়ক প্লাজার শট অল্পের জন্য লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়, লালখাবপুইমাওয়াইয়ার একটি প্রচেষ্টা গোললাইন সেভ হয়। তবু প্রথমার্ধের নির্ধারিত সময়ের তিন মিনিট আগে অ্যারোজ ডিফেন্সের লকগেট খোলে চার্চিল। ইসরায়েল গুরুংয়ের সেন্টার থেকে মাথা ছুঁইয়ে চার্চিলকে এগিয়ে দেন আবু বাকর।

দ্বিতীয়ার্ধে বিপক্ষ ডিফেন্সের ভুলের সুযোগ কাজে লাগিয়ে চার্চিলকে দ্বিতীয়বারের জন্য এগিয়ে দেওয়ার পরিস্থিতি তৈরি করে ফেলেছিলেন প্লাজা। কিন্তু এযাত্রায় পরিবর্ত আমন ছেত্রীর ভুল থেকে অ্যারোজকে বাঁচান মনবীর সিং। শেষমেষ ৭৮ মিনিটে অ্যারোজের লড়াই দাম পায়। বক্সের মধ্যে ছেত্রীর কাটব্যাক থেকে জোরালো শটে ১-১ করেন গিবসন সিং।

নির্ধারিত সময়ের শেষ মিনিটে প্লাজার একাধিক সহজ সুযোগ নষ্টের খেসারত দিতে হয় চার্চিলকে। চার্চিল ডিফেন্ডার রবার্ট ও গোলরক্ষক কিথানের ভুল বোঝাবুঝির সুযোগ নিয়ে দলের হয়ে দ্বিতীয় গোলটি করে অ্যারোজের তিন পয়েন্ট নিশ্চিত করেন তেলেম সুরঞ্জিত সিং। এই জয়ের সঙ্গে চলতি আই লিগে প্রথম পয়েন্ট ঘরে তুলল অ্যারোজ। হারের ফলে ৩ ম্যাচে ৬ পয়েন্ট নিয়ে চতুর্থস্থানে রইল চার্চিল। ৪ ম্যাচে ৮ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে থেকেই বছর শেষ করছে আলেজান্দ্রো ব্রিগেড।

দ্বিতীয়স্থানে থাকা পঞ্জাব এফসির পয়েন্ট ৫ ম্যাচে ৮, অন্যদিকে ৪ ম্যাচে ৭ পয়েন্ট নিয়ে চতুর্থস্থানে মোহনবাগান।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ